kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

হাটহাজারীতে কৃষকদের কাছ থেকে বোরো ধান সংগ্রহ শুরু

প্রতিকেজি ২৬ টাকা

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৩ মে, ২০১৯ ০১:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাটহাজারীতে কৃষকদের কাছ থেকে বোরো ধান সংগ্রহ শুরু

ছবি: কালের কণ্ঠ

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে বোরো ধান সংগ্রহ করছে হাটহাজারী উপজেলা খাদ্য অফিস। গতকাল বুধবার উপজেলার ১১ মাইল খাদ্য গুদামে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান ক্রয় কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন হাটহাজারী উপজেলা  নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রুহুল আমিন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একজন কৃষকের কাছ থেকে ২১৭ কেজি বোরো ধান ক্রয়ের মাধ্যমে বোরো ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

সূত্রে জানা গেছে, হাটহাজারী উপজেলার কৃষকদের কাছ থেকে ১০৭ টন বোরো ধান সংগ্রহ করবে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কার্যালয়। প্রতি কৃষকের কাছ থেকে কেজিপ্রতি ২৬ টাকা দরে সর্বোচ্চ ৭৫ মণ করে বোরো ধান সংগ্রহ করবে খাদ্য বিভাগ। 

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা ছাই থোয়াই ফ্রু মারমা জানান, উপজেলার কৃষকদের কাছ থেকে সরাসরি বোরো ধান সংগ্রহ করা হচ্ছে। উপজেলাভিত্তিক লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ধান ক্রয় করা হবে। তিনি কৃষকদের জ্ঞাতার্থে জানান, কী ধরনের ধান নেওয়া হচ্ছে তা অনেকে অবগত নয় আবার সরকার কত টাকা নির্ধারণ করেছে তাও অনেক কৃষক-কৃষাণি পুরোপুরি অবগত নয় তাই তাদের অবগতির জন্য জানাচ্ছি আমরা ২৬ টাকা দরে ধান ক্রয় করছি। ধানগুলো কমপক্ষে চার-পাঁচদিনের দিনের শুকনো এবং চিটামুক্ত হতে হবে। কৃষকরা অবশ্যই কার্ডধারী হতে হবে। আর যারা কার্ডধারী নয় তারা স্ব স্ব ইউনিয়নের কৃষি অফিসারদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কার্ডধারী হয়ে যাবেন। কার্ডধারীর অবশ্যই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনির আহমদ বলেন, ধান নেওয়ার আগে আমরা কার্ডধারী কিনা এবং কার্ডধারী হলে সরকারের দেওয়া মেশিন দিয়ে পরীক্ষা করে নেব।

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, ধান ক্রয় করা নিয়েও অনেক অসাধু লোক কৃষকদের মাঝে বিভ্রান্তিমূলক কথাবার্তা ছড়াচ্ছেন। তাদের গুজবে কান না দেয়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন কেজি প্রতি ২৬ টাকা দরে সরকার ধান কিনছে। আপনারা খাদ্য পরিদর্শকের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করে নিয়মাবলী জেনে নিয়ে ধান বিক্রি করবেন।

তিনি আরো বলেন, একজন কৃষক একসঙ্গে তিন টন পর্যন্ত ধান বিক্রি করতে পারবে। যদি কোনো কৃষকের উৎপাদিত ধানের পরিমাণ আরও বেশি হয়, সেক্ষেত্রে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তার প্রত্যয়ণে আরো বেশি পরিমাণে ধান বিক্রি করতে পারবেন।

মন্তব্য