kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

পরিবহন মালিককে হাতুরিপেটা ও চাঁদা আদায় মামলায় গ্রেপ্তার ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

২২ মে, ২০১৯ ০১:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পরিবহন মালিককে হাতুরিপেটা ও চাঁদা আদায় মামলায় গ্রেপ্তার ৩

ছবি: কালের কণ্ঠ

সাভারে একদল চিহ্নিত চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে এক পরিবহন মালিককে চাঁদার দাবিতে হাতুরিপেটা, চাঁদা আদায় ও সাদা স্ট্যাম্পে জোরপূর্বক স্বাক্ষর রাখার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগে মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ তিন চাঁদাবাজকে গ্রেপ্তার করেছে। 

আটককৃতদের নাম- ইসমাইল হোসেন (৫০), আব্দুস সালাম রুবেল (৪০) ও সাজ্জাদ আরিফ (২১)। মঙ্গলবার দুপুরে সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, সাভারের হেমায়েতপুর থেকে বিরুলিয়া রোডে চলাচলকারী পরিবহন ব্যবসায়ী আপেল মাহমুদের কাছে তিন লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে আসছিল ইসমাইল হোসেন, সাজ্জাদ, আ. সালাম রুবেল, শামীম সরকার, মো. লিটনসহ কয়েকজন। আপেল মাহমুদ চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে গত ৪ মে সন্ধ্যায় সাভার বাজার এলাকার একটি অফিসে তাকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ধরে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। সেখানে নিয়ে রুবেল, সাজ্জাদ ও শামীম তিন লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে হাতুড়ি ও রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক রক্তাক্ত জখম করে। পরে সংবাদ পেয়ে আপেল মাহমুদের স্ত্রী ঘটনাস্থলে ছুটে আসলে সন্ত্রাসীরা ৩টি একশত টাকার নন জুডিশিয়াল সাদা স্ট্যাম্পে জোরপূর্বক ওই ব্যবসায়ীর স্বাক্ষর নেয় এবং তার স্ত্রীর কাছ থেকে ৩৫ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করে ছেড়ে দেয়।

ব্যবসায়ীর স্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, তার স্বামীকে মারধর ও চাঁদাবাজির ঘটনায় থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা গ্রহণ না করে সাধারণ ডায়েরি করে। পরে উক্ত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ঢাকা অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি সিআর দায়ের করি। 

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী আপেল মাহমুদ অভিযোগ করে বলেন, চাঁদাবাজ ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রুপটি দীর্ঘদিন তার কাছে চাঁদা বাবি করে আসছিল। তিনি চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় তারা তাকে ধরে নিয়ে গিয়ে মারধর করেছে।

সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ এফ এম সায়েদ জানান, পরিবহন ব্যবসায়ী আপেল মাহমুদের করা অভিযোগটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করার জন্য আদালত থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়। সেই মোতাবেক মামলা নথিভুক্ত করে তিনজনকে গ্রেপ্তার করে পাঁচ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা