kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

অসহায়ের ধান কেটে দিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক

জীবননগর (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি   

২১ মে, ২০১৯ ২০:০১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অসহায়ের ধান কেটে দিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক

ছবি : কালের কণ্ঠ

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস চলতি বোরো মৌসুমের ধান সংগ্রহাভিযানের জন্য জীবননগরে যাচ্ছিলেন। এসময় মনোহরপুর ইউনিয়নের পেয়ারাতলা নামক স্থানে সড়কের ধারে ধান কাটছিলেন মা ও ছেলে। ধান কাটার এ দৃশ্য দেখে জেলা প্রশাসক গাড়ি থামিয়ে দেন। তিনি নেমে পড়েন ক্ষেতের মাঝে। মহিলার কাছে জানতে পারেন, তিনি ধান চাষি জেবুন্নেসা। একমাত্র ১৫ কাঠা জমিতে চাষ করেছেন ধান। শ্রমিক সংকট আর শ্রমিকের বাড়তি মূল্যের কারনে ধান কাটতে পারেননি। আজ মা ও ছেলে মিলে ধান কাটতে আসেন। জেলা প্রশাসক মা-ছেলের সাথেই নেমে পড়েন ধান কাটতে। 

খবর পেয়ে জীবননগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজি হাফিজুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম ঈশা, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সারমিন আক্তার, মনোহরপুর ইউপি চেয়ারম্যান সোহরাব হোসেন খাঁন ও স্কাউটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে জেলা প্রশাসকের সাথে পাঁকা ধান স্বেচ্ছায় বিনা মজুরিতে কেটে দেন। 

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) খন্দকার ফরহাদ আহমদ ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ ইয়াহ্ ইয়া খাঁন।

জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাস বলেন, আমরাও কৃষকের সন্তন, কৃষকদের এই দুঃসময়ে তাঁদের পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেদেরও সৌভাগ্যবান মনে করছি। কৃষকরা সাময়িক শ্রমিক সংকটে পড়েছে হয়তো সেটা কেটে যাবে। এছাড়া ধান সংগ্রহ অভিযান শুরুর মধ্য দিয়ে কৃষকের উৎপাদিত ধানের দাম বাড়ার পাশাপাশি তারা ন্যায্য মূল্য পাবে বলে আশা করছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা