kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

শিক্ষকের কুকর্মে অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী, সাত মাস পর গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর    

২১ মে, ২০১৯ ১৯:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিক্ষকের কুকর্মে অন্তঃসত্ত্বা স্কুলছাত্রী, সাত মাস পর গ্রেপ্তার

গাজীপুরে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে শিক্ষক সোহেল রানাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে নগরীর সালনা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া সোহেল রানা দক্ষিণ সালনা এলাকার মো. জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে এবং সালনা ল্যাবরেটরি স্কুলের শিক্ষক। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা মেট্রোপলিটন সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধর মামলার বরাত দিয়ে জানান, ছাত্রীটি সালনা ল্যাবরেটরি স্কুলের ছাত্রী। সে স্কুলের শিক্ষক মো. রুবেলের কাছে প্রাইভেট পড়ত। গত বছরের ১২ অক্টোবর সকালে অন্যদের সঙ্গে স্কুলে প্রাইভেট পড়ে ফেরার সময় অভিযুক্ত শিক্ষক সোহেল রানা কথা আছে বলে ছাত্রীকে দাঁড় করান। সহপাঠীরা চলে গেলে স্কুলের অফিস কক্ষে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে সোহেল ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। এ সময় ছাত্রীটি কান্নাকাটি করলে তাকে ভয় দেখিয়ে স্কুল থেকে বের করে দেন। ঘটনাটি প্রকাশ না করারও হুমকি দেন ওই শিক্ষক।

ভয়ে স্কুলছাত্রী ঘটনাটি তার অভিভাবক বা বাবা-মাক কাউকেও জানায়নি। সম্প্রতি সে অসুস্থ হয়ে পড়লে স্বজনরা সালনা সেবা মেডিক্যাল সেন্টারে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান। চিকিৎসক পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর নিশ্চিত হন ওই ছাত্রী প্রায় সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা। পরে ওই ছাত্রী স্বজনদের ঘটনা খুলে বলে। সোমবার রাতে সদর থানায় মামলা করেন ওই ছাত্রীর বাবা। মধ্য রাতে দক্ষিণ সালনা থেকে অভিযুক্ত শিক্ষক সোহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা