kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

শোবার ঘরে পোশাক শ্রমিকের ঝুলন্ত মরদেহ

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৯ মে, ২০১৯ ১৩:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শোবার ঘরে পোশাক শ্রমিকের ঝুলন্ত মরদেহ

প্রতীকী ছবি

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় অনামিকা আকতার রেমি (২২) নামে এক পোশাক কারখানার শ্রমিকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত অনামিকা আকতার রেমি উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়নের বেড়েরবাড়ি গ্রামের আব্দুল হামিদ ফকিরের মেয়ে। রবিবার সকাল ১০টার দিকে ধুনট থানা থেকে তার মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।  

থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অনামিকা আকতার মা-বাবার অমতে প্রায় ৪ বছর ধরে ঢাকায় একটি পোশাক কারখানায় কাজ করত। বাবা তাকে ঢাকা থেকে বাড়ি ফিরিয়ে আনার জন্য নানা কৌশল অবলম্বন করে। একপর্যায়ে ১০ দিন আগে পোশাক কারখানা থেকে ছুটি নিয়ে বাবার বাড়িতে আসে অনামিকা আকতার। পোশাক কারখানায় চাকরির বিষয় নিয়ে মা-বাবার সাথে তার ঝগড়া হয়। 

এ অবস্থায় শনিবার সন্ধ্যার দিকে বাবার বাড়ির একটি ঘরের আড়ার সাথে অনামিকা আকতারের গলায় ফাঁস লাগানো ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পায় স্বজনরা। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ শনিবার মধ্যরাতের দিকে অনামিকার মৃতদেহ উদ্ধার করে। 

নিহত অনামিকার বাবা আব্দুল হামিদ বলেন, মেয়েটি ছোটবেলা থেকেই অবাধ্য ছিল। পোশাক কারখানায় কাজ করতে তাকে অনেক বার নিষেধ করা হয়েছে। তারপরও কাজ ছাড়তে রাজি ছিল না। এ সব বিষয় নিয়ে শাসন করায় অভিমানী মেয়েটি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। 

ধুনট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শরিফুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যু মামলা (ইউডি) রেকর্ড করে অনামিকার মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


খবরটি ইউনিকোড থেকে বাংলা বিজয় ফন্টে কনভার্ট করা যাবে কালের কণ্ঠ Bangla Converter দিয়ে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা