kalerkantho

সোমবার । ২৪ জুন ২০১৯। ১০ আষাঢ় ১৪২৬। ২০ শাওয়াল ১৪৪০

সাধারণ শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

ধর্ম নিয়ে কুবি শিক্ষার্থীর কটুক্তি, অভিযুক্তকে মারধর

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৯ মে, ২০১৯ ১০:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধর্ম নিয়ে কুবি শিক্ষার্থীর কটুক্তি, অভিযুক্তকে মারধর

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও নবী মুহাম্মদ (সা.) কে নিয়ে কটুক্তির অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে অভিযুক্তকে শাস্তির আওতার আনার দাবি জানিয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অভিযুক্ত জয় দেবকে মারধর করে পুলিশে সোপর্দ করার প্রস্তুতি চলছে।

অভিযুক্ত শিক্ষার্থীর নাম জয় দেব। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষার্থী।

অভিযোগকারীদের থেকে জানা গেছে, ফেসবুকে ভয়েস অফ আমেরিকার অফিসিয়াল পেইজের একটি ভিডিওতে ইসলাম ধর্ম ও নবীজি কে নিয়ে কটুক্তি করে মন্তব্য করেন জয় দেব। পরে এ বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থীর নজরে আসলে তার স্ক্রিনশট দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আন-অফিসিয়াল গ্রুপগুলোতে পোস্ট করলে শিক্ষার্থীরা এর প্রতিবাদ জানান। পরে জয় দেব সেটি মুছে ফেলে- এমন মন্তব্যের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে ক্ষমা চায়। ক্ষমা চেয়ে তিনি লিখেন, ''সব মুসলমান ভাই ও বোনদের কাছে আমি ক্ষমা চাইতেছি। আর মুসলেকা দিচ্ছি দ্বিতীয়বার এই রকম ভুল আর হবে না'', ''ধর্মীয় বিষয় নিয়ে এই রকম কমেন্ট করার জন্য আমি দুঃখিত। সবার নিকট আমি খুবই দুঃখিত এবং লজ্জিত। এ রকম ভুল আর পরবর্তীতে হবে না।'' তবে শিক্ষার্থীরা তাকে ক্ষমা না করে ডিজিটাল সিকোরিটি আইনে মামলা ও প্রশাসনিক শাস্তির দাবি জানান। 

ইমতিয়াজ শাহরিয়া নামক এক শিক্ষার্থী লিখেন, ''কুবির প্রশাসনের নিকট আবেদন অতি শীঘ্রই আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানবকে নিয়ে এত বড় কথা? একজন মুসলমান হিসেবে, একজন জ্ঞানী মানুষ, একজন বিধর্মী কেউই সহ্য করব না। বিচার করেন। না হয় আইন নিজের হাতে তুইলা নিমু।'' অর্নব ধর নামের এক শিক্ষার্থী লিখেন, ''সাম্প্রদায়িকতার একটা লেভেল আছে! কিন্তু ও তো সাম্প্রদায়িক না! ও জঘন্য নিচু মন মানসিকতার। ধর্ম প্রত্যেকটা মানুষের আবেগ এবং বিশ্বাসের জায়গা। কোনো ধর্ম নিয়ে এমন কটুক্তি করা ভীষণ অন্যায়! দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত এর।''

অভিযুক্ত জয় দেবের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তা সম্ভব হয়নি।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী কামাল উদ্দিন বলেন, 'আমি বিষয়টি সম্পর্কে শুনেছি। অভিযোগ সত্য হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রচলিত আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।''

মন্তব্য