kalerkantho

সোমবার । ২৪ জুন ২০১৯। ১০ আষাঢ় ১৪২৬। ২০ শাওয়াল ১৪৪০

বন্দুকযুদ্ধে নিহত ছেলের জানাজা পড়তে পারেনি ইয়াবা কারবারি বাবাও

টেকনাফ প্রতিনিধি   

১৮ মে, ২০১৯ ২৩:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বন্দুকযুদ্ধে নিহত ছেলের জানাজা পড়তে পারেনি ইয়াবা কারবারি বাবাও

কক্সবাজারের টেকনাফে গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মোহাম্মদ ইব্রাহিম নামে এক ইয়াবা কারবারি নিহত হয়েছে। সে টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপের মিস্ত্রী পাড়ার নুরুল আমিন ওরফে বল্লার ছেলে।

তবে তারা বাবা-ছেলে দুইজনই ছিলেন আইন প্রয়োগকারী সংস্থার একাধিক তালিকায় তালিকাভুক্ত ইয়াবা কারবারি। এতদিন দুইজনই আত্মরক্ষার্থে প্রশাসনের ধরা থেকে বাঁচতে পালিয়ে ছিলেন। এদিকে ছেলে ইব্রাহিম ইয়াবা কারবারের সঙ্গে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডেও জড়িত ছিলেন।

গত বুধবার শাহপরীর দ্বীপ উত্তর পাড়ায় অস্ত্র নিয়ে নারী সংক্রান্ত বিষয়ে ঘটনা ঘটাতে গিয়ে পুলিশের জালে আটকা পড়েন ইব্রাহিম। পরে পুলিশ তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তাকেসহ ইয়াবা উদ্ধারে গেলে সেখানে ইয়াবা কারবারি ও পুলিশের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনায় সে গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন।

আজ শনিবার সন্ধ্যায় নিহত ইব্রাহিমের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। তবে তার বাবা নুরুল আমিন ওরফে বল্লা এলাকায় থাকার পর ছেলের জানাজায় অংশ নেননি। প্রশাসনের দৃষ্টি আড়াল করতে বা গ্রেপ্তার ভয়ে তিনি নিজ ছেলের জানাজায় যাননি বলে জানান তার প্রতিবেশীরা।

এদিকে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ছেলের জানাজায় পিতার অনুপস্থিতি এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

স্থানীয় সমাজ সেবক আবুল হোসেন বলেছেন, এটি সবার জন্য একটি শিক্ষা। জন্মদাতা পিতা নিজেই ইয়াবা কারবারি হওয়ায় তার ইয়াবা কারবারি সন্তানের জানাজা পড়তে পারেনি, তার চেয়ে হতাশা আর কি হতে পারে। এর থেকে অন্যদেরও শিক্ষা গ্রহণ করা উচিত।

এলাকার এক মসজিদের ইমাম নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বাবার আগে সন্তান চলে যাওয়া যেকোনো পরিবারের জন্য মর্মান্তিক ঘটনা। সেখানে স্বয়ং বাবা ছেলের জানাজায় অংশ না নেওয়া আরো মর্মান্তিক। আমরা শুনেছি শুধু ইয়াবা তালিকাভুক্ত হওয়ায় বাবা ছেলের জানাজায় অংশ নেননি। এই ইয়াবা নামক মাদক একটি পরিবারকে কতটা অধঃপতন ঘটিয়ে দিল তা অন্যদের জন্যও শিক্ষনীয়।

মন্তব্য