kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

কলমাকান্দায় জোরপূর্বক ধর্ষণে প্রতিবন্ধী ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা

কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি    

১৬ মে, ২০১৯ ২৩:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কলমাকান্দায় জোরপূর্বক ধর্ষণে প্রতিবন্ধী ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা

নেত্রকোণার কলমাকান্দা উপজেলার রংছাতী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী এক ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করায় মেয়েটি ৩ মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে উপজেলার রংছাতী ইউনিয়নের পাঁচগাও পূর্ব জুলপাড়া গ্রামের রমজান আলীর পুত্র মোটরসাইকেল চালক আকবর আলীর বিরুদ্ধে।

পারিবারিক ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রংছাতী ইউনিয়নের ইউনিয়নের পাঁচগাও পূর্ব জুলপাড়া গ্রামের উকিল বোনের বাড়িতে প্রায়ই আসা-যাওয়া করতেন আকবর আলী। তখন থেকে প্রতিবন্ধী ছাত্রীর ওপর নজর দেন তিনি। পরে তাদের মধ্যে পরিচয় ঘটে। একই ইউনিয়নের বাসিন্দা হওয়ায় তাদের মধ্যে দেখা হয়, কথা হয়। পরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে আকবর যে বিবাহিত এ কথা গোপন রেখে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভিকটিমকে বেশ কয়েক বার জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। লোক লজ্জায় ধর্ষণের বিষয়টি প্রতিবন্ধী ছাত্রী এতোদিন কাউকে বলেনি।

ভিকটিমের মা গত ১৪ মে মেয়ের অস্বাভাবিক পরিবর্তন দেখে কলমাকান্দা প্রাইভেট ক্লিনিকে নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানতে পারেন তার মেয়ে তিন মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এরপর ধর্ষণের বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে মেয়ে তার মাসহ পরিবারের লোকদের কাছে সব খুলে বলে।

এ বিষয়ে ওই ইউপি সদস্য মো. আক্কাস আলী কালের কণ্ঠকে জানান, তিনি বিষয়টি শুনেছেন। শোনার সাথে সাথেই সংশ্লিষ্ট ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। ভিকটিম সমাজসেবা অধিদপ্তরের প্রতিবন্ধী কার্ডধারী সুবিধাভোগীদের মধ্যে একজন।

এ বিষয়ে ব্র্যাক মানবাধিকার ও আইন সহায়তার কর্মকর্তা উৎপল কুমার দেব জানান, খবর পেয়ে তিনি তাৎক্ষণিকভাবে সরেজমিনে যান এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করেন। তিনি আরো বলেন, প্রতিবন্ধী ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ও অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি একটি সামজিক সালিশ অযোগ্য অপরাধ।

এ বিষয়ে কলমাকান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মাজহারুল করিম এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভিকটিমকে উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে প্রতিবন্ধী  ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে ধর্ষক আকবর আলীকে আসামি করে বৃহস্পতিবার রাতে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। স্কুলছাত্রীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে ও ২২ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার জন্য আগামী শনিবার সকালে নেত্রকোণার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা