kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

গাড়ি ভাঙচুর, চালক ও পুলিশ আহত

চট্টগ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর সন্ত্রাসী হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৪ মে, ২০১৯ ০১:৩৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ওপর সন্ত্রাসী হামলা

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গিয়ে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আখতার। সন্ত্রাসীরা এ সময় করপোরেশনের পাঁচটি গাড়ি ভাঙচুর করেছে। তাদের হামলায় গাড়িচালক ও পুলিশ সদস্যসহ দুজন আহত হয়েছে। হামলাকারীদের মধ্যে ছয়জনকে গেপ্তার করেছে পুলিশ। 

গতকাল সোমবার বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগরের বায়েজিদ থানাধীন বাংলাবাজার এলাকায় বিএসআরএমের সামনের সড়কে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গিয়ে হামলার মুখে পড়েন সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জালালাবাদ ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহেদ ইকবাল বাবু কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাংলাবাজার বিএসআরএমের সামনে সড়কে ১০০-১৫০টি অবৈধ দোকান আছে। পানি জসিম নামের এক সন্ত্রাসী দোকানপ্রতি ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা ভাড়া আদায় করে। গতকাল ম্যাজিস্ট্রেট এসব অবৈধ দোকান উচ্ছেদ করতে এলে জসিমের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। তারা ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িসহ পাঁচটি গাড়ি ভাঙচুর করেছে। হামলায় এক পুলিশ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেন। এ ছাড়া সিটি করপোরেশনের দুজন কর্মচারীও আহত হয়েছেন।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, কয়েকটি স্থাপনা উচ্ছেদের পর সন্ত্রাসীরা ম্যাজিস্ট্রেটসহ ভ্রাম্যমাণ আদালতের লোকজনের ওপর লাঠি ও বাঁশ নিয়ে হামলা চালায়। হামলায় পিছু হটে যান ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আখতার। পরে ম্যাজিস্ট্রেটের ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন ওয়ার্ড কাউন্সিলর।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আখতার বলেন, ‘বাংলাবাজার এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করার সময় হঠাত্ করে দখলদাররা হামলা করে। সিসিটিভি ক্যামেরা থেকে হামলাকারীদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। হামলার সময় ছয়জনকে আটক করে তিনজনকে তাত্ক্ষণিক কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।’

ঘটনার বিষয়ে বায়েজিদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতাউর রহমান বলেন, ‘হামলার খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। হামলাকারীদের মধ্যে তিনজনকে তাৎক্ষণিক কারাদণ্ড দিয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেট। বাকি তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা