kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

সড়ক বিভাগের কোটি টাকার সম্পত্তি পিয়নের দখলে

মোল্লাহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ২১:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সড়ক বিভাগের কোটি টাকার সম্পত্তি পিয়নের দখলে

বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট কাটাখালী এলাকায় সড়ক বিভাগের কোটি টাকার সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করে গৃহ নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে সড়ক ও জনপদ বিভাগের এক পিয়নের বিরুদ্ধে। সরকারি সম্পত্তি অবৈধ দখল মুক্ত করতে স্থানীয়রা বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করলেও কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি সংশ্লিষ্ট দপ্তর। 

অভিযুক্ত পিয়ন সিরাজুল ইসলাম ১৯৭৮-৭৯ সালে নওয়াপাড়া মৌজায় এল এ ১১ নং কেসে সড়ক বিভাগের অধিগ্রহণকৃত জমির উপর গৃহ নির্মাণ কারায় স্থানীয়রা ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। 

লখপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার খোরশেদ আলোম বলেন, ‘নওয়াপাড়া এলাকায় সড়ক বিভাগের স্টোরের কাজে ব্যবহৃত প্রায় এক একর জমিতে বালু ভরাট করে ঘর নির্মাণ করেছে সড়ক ও জনপদ বিভাগের পিয়ন মো. সিরাজুল ইসলাম। এই জমির উপর থেকে নওয়াপাড়া ও লখপুর এলাকার পানি সরবরাহ হয়। বলু ভরাট করে ঘর নির্মাণ করায় পানি সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। সরকারি সম্পত্তি অবৈধ দখল মুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। কোনো পদক্ষেপ নেয়নি তারা।’ 

লখপুর ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্য তাসলিমা বেগম লতা বলেন, ‘জেলা প্রাশাসকসহ বাগেরহাট সড়ক ও জনপদ বিভাগে প্রায় ছয় মাস আগে স্থানীয়রা গণস্বাক্ষর করে অভিযোগ করার পরেও ভূমিদস্যুদের অজ্ঞাত প্রভাবে সরকারি সম্পত্তি অবৈধ দখল মুক্ত করা হয়নি। ফলে সড়ক বিভাগের সম্পত্তি অবৈধ দখলে উৎসাহিত হচ্ছে একটি চক্র।’ 

এই ব্যাপারে বাগেরহাট সড়ক ও জনপদ বিভাগের অভিযুক্ত পিয়ন সিরাজুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সড়ক বিভাগের জায়গায় রাস্তার পাশে অনেকেই অবৈধভাবে দখল করে ঘর নির্মাণ করে থাকলেও কিছু হয় না। আমি সড়ক বিভাগের জায়গায় থাকি। সড়ক ও জনপদ বিভাগের পরিত্যাক্ত জমিতে মুরগির ঘর নির্মাণ করেছিলাম। শত্রুতামূলকাভাবে আমাকে উচ্ছেদের জন্য একটি চক্র উঠে পড়ে লেগেছে। কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দিলে আমি তা ভেঙে নিয়ে যাব।’
 
বাগেরহাট সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুজ্জামান মাসুদ কালের কন্ঠকে বলেন, ‘ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

মন্তব্য