kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

লক্ষ্মীপুরে দগ্ধ তরুণীর মৃত্যু: চার আসামি দুই দিনের রিমান্ডে

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ২১:২৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লক্ষ্মীপুরে দগ্ধ তরুণীর মৃত্যু: চার আসামি দুই দিনের রিমান্ডে

স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে এসে লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে আগুনে দগ্ধ হয়ে চট্টগ্রামের তরুণী শাহীনুর আক্তারের (২৪) মৃত্যুর ঘটনায় গ্রেপ্তার ইউপি সদস্যসহ ৪ আসামির দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

আজ বুধবার দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. তারেক আজিজের আদালত তাদের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার তদন্তকারী কমকর্তা ও কমলনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আলমগীর হোসেন আসামিদের মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। রিমান্ড শুনানির জন্য আদালত বুধবার ধার্য করেন।

মামলার তদন্তকারী কমকর্তা মো. আলমগীর হোসেন বলেন, আদালত আসামিদের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। প্রধান আসামি সালাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।

রিমান্ডে নেওয়া আসামিরা হলেন কমলনগর উপজেলার চরফলকন ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) হাফিজ উল্যা, গ্রাম পুলিশ আবু তাহের, নিহত তরুণীর দাবি করা স্বামী সালাউদ্দিনের ভাই আবদুর রহমান বিশ্বাস ও আলাউদ্দিন। প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হলেও পরে দায়ের করা মামলায় তাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

থানা পুলিশ জানায়, নিহতের বাবা জাফর উদ্দিন বাদী হয়ে সোমবার (২২ এপ্রিল) রাতে সালাউদ্দিনকে প্রধান আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ৪ (১)/৩০ ধারায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এতে ইউপি সদস্যসহ ১৩ জনকে আসামি করা হয়। এরমধ্যে ৫ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ৮ জন রয়েছে। প্রধান আসামি সালাউদ্দিন পলাতক রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার তরুণী শাহীনুর আক্তার (গার্মেন্টসকর্মী) শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) লক্ষ্মীপুরের কমলনগরের সালাউদ্দিনের (রিকশা চালক) কাছে স্ত্রীর স্বীকৃতি চাইতে আসেন। রবিবার (২১ এপ্রিল) বিকেলে কমলনগর উপজেলার আইয়ুবনগর এলাকার একটি সয়াবিন ক্ষেত থেকে তার শরীরে জ্বলন্ত আগুন নিয়ে দৌঁড়ে বের হতে দেখে স্থানীয়রা। আগুন নিভিয়ে দগ্ধ অবস্থায় তাকে প্রথমে কমলনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে ইউপি সদস্য হাফিজ উল্যা ও গ্রাম পুলিশ আবু তাহের।

ঘটনাস্থলে স্থানীয়দের কাছে শাহীনুর বলেছেন, সালাউদ্দিন তাকে স্ত্রীর স্বীকৃতি দেয়নি। এটি সহ্য করতে না পেরে রাগ-ক্ষোভে এমনটি করেছেন। পরে আবার শাহীনুর সদর হাসপাতালে সাংবাদিকদের বলেছেন, সালাউদ্দিন কেরোসিন দিয়ে তার শরীরের আগুন দিয়েছে। সোমবার (২২ এপ্রিল) ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

মন্তব্য