kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

অভিযুক্ত উত্ত্যক্তকারীকে পেটাল সহপাঠীরা

বাসে জাবি শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৯:৫২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাসে জাবি শিক্ষার্থীকে যৌন হয়রানি

গণপিটুনির শিকার অভিযুক্ত উত্ত্যক্তকারী গার্মেন্টকর্মী মোহাম্মদ আলী। ছবি : কালের কণ্ঠ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ইংরেজি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের এক নারী শিক্ষার্থীকে বাসের মধ্যে যৌন হয়রানি ও উত্ত্যক্ত করায় বুধবার এক গার্মেন্টকর্মীকে বাস থেকে নামিয়ে গণপিটুনি দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত গার্মেন্টকর্মী মোহাম্মদ আলী (২৪) সাভারের একটি গার্মেন্টে কাজ করেন। তিনি পাবনার ঈশ্বরদীর মোহাম্মদ রফিকের ছেলে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বুধবার (২৪ এপ্রিল) তৃতীয় বর্ষের ওই নারী শিক্ষার্থী দুপুর দেড়টার দিকে মৌমিতা বাসে ধানমন্ডি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরছিলেন, এ সময় পথে বাসের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। বাসে মোহাম্মদ আলী ওই শিক্ষার্থীর সাথে অশোভন আচরণ ও মোবাইলে একাধিকবার (নারী শিক্ষার্থীর) অশ্লীল ছবি তোলেন। বিষয়টি বুঝতে পেরে ওই শিক্ষার্থী বাসের মধ্যে অন্যান্য যাত্রীদের সহযোগিতায় উত্ত্যক্তকারীর কাছে থেকে ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি নিয়ে তার কয়েকটি ছবি তুলেছে বলে নিশ্চিত হন। একইসাথে তিনি মোবাইল ফোনে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে (ডেইরি গেট) তার সহপাঠীদের ডেকে আনেন। পরবর্তীতে বাস প্রধান ফটকে আসলে তার সহপাঠীরা উত্ত্যক্তকারীকে বাস থেকে নামিয়ে গণপিটুনি দেয়। খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে অভিযুক্তকে উদ্ধার করে নিরাপত্তা অফিসে নিয়ে যান।

অভিযোগকারী শিক্ষার্থী বলেন, তিনি বাসের মধ্যে আমার সাথে অশোভন আচরণ করেছেন এবং মোবাইল ফোনে অনেকবার গোপনে আমার ছবি তুলেছেন। পরবর্তীতে অভিযুক্ত অভিযোগ শিকার করে ক্ষমা চাইলে, অভিযোগকারী শিক্ষার্থী তাকে কানে ধরিয়ে পরবর্তীতে এমন ঘটনা না করার প্রতিশ্রুতি নিয়ে ক্ষমা করে দেন।

এ প্রসঙ্গে প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন বলেন, অভিযোগকারী যেহেতু তাকে ক্ষমা করে দিয়েছে এবং এ বিষয়ে কোনো মামলা করেনি তাই তাকে আমরা মুচলেকা নিয়ে তার পরিবারের হাতে তুলে দেব।

মন্তব্য