kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

ভূমি রক্ষা কমিটির নেতার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভূমি রক্ষা কমিটির নেতার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় ভূমিরক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমানের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে আকতার জাহান নামে এক বিধবার বসতবাড়িসহ আবাদি জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। অবৈধ দখলদারের হাত থেকে জমি রক্ষার চেষ্টা করায় বিধবাকে প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় সাইদুর রহমানসহ চারজনের বিরম্নদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছে ওই বিধবা। মঙ্গলবার সকালের দিকে ধুনট প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে আকতার জাহান লিখিত বক্তব্যে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার তারাকান্দি গ্রামের মোবারক আলীর স্ত্রী আকতার জাহান। ১৯৮৮ সালে মোবারক আলীর মৃত্যুর পর তার স্ত্রী আকতার জাহান ও তিন মেয়ে ১২ বিঘা জমি ভোগদখল করতেন। এ অবস্থায় মৃত মোবারক আলীর ভাতিজা সাইদুর, ফরিদুর, দিদারুল ও জাকির হোসেন ১৯৯০ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত আকতার জাহানের বসতবাড়িসহ প্রায় ৬০ শতক সম্পত্তি অবৈধভাবে দখলে নিয়েছে। এ ঘটনায় আকতার জাহান বাদী হয়ে সাইদুর, ফরিদুর, দিদারুল ও জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে মামলাগুলো আদালতে বিচারাধীন। 

এ ছাড়া ওই বিধবার দখলে থাকা বেলকুচি মৌজার আরো ১১৩ শতক জমি অবৈধভাবে দখলের চেষ্টায় বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে সাইদুর রহমান ও তার লোকজন। সম্প্রতি সাইদুর রহমানের নেতৃত্বে ধুনট-শেরপুর ভূমি রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ নামে একটি সংগঠনের আত্মপ্রকাশ ঘটে। সাইদুর রহমান ওই কমিটির সাধারণ সম্পাদক এবং ফরিদুর, দিদারুল ও জাকির হোসেন সদস্য। ওই সংগঠনের মাধ্যমে তারা আকতার জাহানের সম্পত্তি দখলের বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। এ ছাড়া সাইদুর রহমান ২২ এপ্রিল বিধবা আকতার জাহানকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে ভূমি রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বলেন, আমার বিরুদ্ধে আকতার জাহানের অভিযোগগুলো মিথ্যা। আকতার জাহান আমাদের জমি অবৈধভাবে রেকর্ডভুক্ত করে দখলের চেষ্টা করছে। সেই জমি রক্ষা করতেই ভূমি রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ গঠন করে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি। তবে ভূমি রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সরকারি অনুমোদনের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, বিবাদমান জমির মালিকানা নির্ধারণের বিষয়টি আদালতের। তবে বিধবাকে প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য