kalerkantho

রবিবার । ২৬ মে ২০১৯। ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২০ রমজান ১৪৪০

ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যু

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি   

২৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০২:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যু

ইন্দুরকানীতে ভুল চিকিৎসায় নবজাতকের মৃত্যুতে তোপের মুখে চিকিৎসক। জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার উপজেলার ইন্দুরকানী গ্রামের জসিম মীরের নবজাতক শিশুর জন্মের পর শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে প্রাক্তন উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. নুরুল ইসলামকে বাসায় নিয়ে যায়। পরে সে ওই শিশুকে দেখে ম্যাক্সসেফ-২৫০ ইনজেকশন নিজেই পুশ করে দেয়। 

অবস্থার কোনো উন্নতি না হলে পরের দিন তার কথা মতো ম্যাক্সসেফ-২৫০ ও ডি-ফোর্ট ইনজেকশন মিলিয়ে একত্রে পুশ করার ৩ ঘণ্টা পর ওই শিশুর মৃত্যু হয়। প্রথম ডোজ দেওয়ার ২৪ ঘণ্টা পর ২য় ডোজ দেওয়ার কথা থাকলেও ১৬ ঘণ্টা পর দেওয়া হয়। পরিবারের দাবি এ কারণেই শিশুটি মারা গেছে। শিশুটি মারা যাওয়ায় ওই শিশুর পরিবারসহ স্থানীয়রা তার বিচার দাবিতে ক্ষোভে ফেটে পড়ে। 

শিশুটির বাবা মো. জসিম মীর জানান, আমার শিশুটি জন্মের পর অসুস্থ হলে ডা. নুরুল ইসলামকে বাসায় নিয়ে আসি। তিনি দেখে ব্যবস্থাপত্র দেন এবং নিজেই ইনজেকশন পুশ করেন। পরের দিন তার দেওয়া ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওই ইনজেকশন পুশ করার ৩ ঘণ্টা পর আমার শিশু পুত্র মারা যায়। আমি এর বিচার চাই। 

অভিযুক্ত চিকিৎসক ডা. নুরুল ইসলাম জানান, শিশুটির বাবা জসিম মীর শিশুটির অসুস্থের বিষয় জানালে আমি ওই বাড়িতে গিয়ে শিশুটিকে দেখে ব্যবস্থাপত্র দেই এবং ম্যাক্সসেফ-২৫০ ইনজেকশন পুশ করি। তবে ওইদিন শিশুটি ভালো ছিল। পরের দিন ব্র্যাকের নার্স সাথী আক্তার আমার দেওয়া ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ওই ইনজেকশন পুশ করে। পরে শিশুটি মারা যায়।

মন্তব্য