kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

‘রোহিঙ্গারা কিছুতেই যেন ভোটার হতে না পারে’

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২২ এপ্রিল, ২০১৯ ১৬:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘রোহিঙ্গারা কিছুতেই যেন ভোটার হতে না পারে’

রোহিঙ্গারা সারা দেশে ছড়িয়ে গেছে। ইতোমধ্যে সেই প্রমাণও আমরা পেয়েছি। তাই ভোটার তালিকা হালনাগাদ করার সময় সতর্ক থাকতে হবে। রোহিঙ্গারা যেন কিছুতেই ভোটার হতে না পারে। সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। রোহিঙ্গারা আমাদের শরনার্থী। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে আশ্রয় না দিলে নাফ নদীতে রক্তের বন্যা বয়ে যেত। কিন্তু সময় মতো তাদেরকে নিজ দেশে ফিরিয়ে দেওয়া হবে। তাই এখানে তাদের ভোটার করা যাবে না বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম। 

সোমবার দুপুর দেড়টায় সীতাকুণ্ড উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম-১৯ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, ইতোপূর্বে মায়ানমার বাংলাদেশের একটি সুপরিচিত দ্বীপকে তাদের মানচিত্রে ঢুকিয়ে নিয়েছিলো। রোহিঙ্গাদের এ দেশ থেকে নিজেদের দেশে পাঠানো না গেলে এক সময় কক্সবাজারকেও তাদের মানচিত্রে ঢুকিয়ে ফেলা অসম্ভব নয়। তাই মানবিকতার কারণে রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিলেও তারা যেন এ দেশের কোন প্রান্তে ভোটার হতে না পারে সে দিকে সতর্ক থাকতে হবে। 

তিনি বলেন, ভোটার তালিকা হালনাগাদ করার সময় শুধুমাত্র যাদের বয়স ১৮ হয়েছে তাদের তথ্য সংগ্রহ করলেই হবে না। যারা আগামী ২ বছর পরেও ভোটার হবেন অর্থাৎ ২ বছর পর যাদের বয়স ১৮ হবে বর্তমানে বয়স ১৬ রয়েছে তাদেরও তথ্য হালনাগাদ করতে হবে। এছাড়া যারা ইতোমধ্যে মারা গেছেন কিংবা কোন এলাকার অস্থায়ী ভোটার ছিলেন এখন অন্যত্র চলে গেছেন তাদের তথ্যও সংগ্রহ করতে হবে। ২৩ এপ্রিল থেকে এই হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু হবে। সকল কর্মকর্তাদেরকে নির্ভুলভাবে ভোটার তালিকা তৈরি করে ভোটারদের একটি নির্ভুল পরিচয় পত্র প্রদানে সহযোগিতা করতে হবে।

সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিল্টন রায়ের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম অঞ্চলের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান, সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার মুনীর হোসাইন খান, সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. দেলওয়ার হোসেন প্রমুখ। 

মন্তব্য