kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

জলঢাকা ইউএনও’র ফেসবুকে মানবিক আবেদন

জোড়া লাগানো নবজাতকের চিকিৎসায় সহায়তা প্রদান

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ২২:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জোড়া লাগানো নবজাতকের চিকিৎসায় সহায়তা প্রদান

ছবি: কালের কণ্ঠ

নীলফামারীর জলঢাকায় ডে-নাইট ক্লিনিকে জন্ম নেওয়া সেই জোড়া লাগানো মেয়ে নবজাতকের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠাতে নগদ অর্থ প্রদান করা হয়। এজন্য রবিবার বিকালে জোড়া লাগানো নবজাতক লাবিবা-লামিশার বাবা লাল মিয়ার ডাক পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে।

জানা যায়, শনিবার “কালের কণ্ঠ” পত্রিকায় ‘জোড়া লাগানো সন্তান নিয়ে মা-বাবার আহাজারি ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হলে নবজাতকদের দেখতে সরেজমিন ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজাউদ্দৌলা। ওই সময় সেখানে অবস্থানকালীন উপস্থিতিদের অনুরোধে তিনি ওই নবজাতকের নাম রাখেন এবং চিকিৎসার জন্য সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস দেন।

পরে তার নিজ দপ্তরে ফিরে ইউএনও জলঢাকা ফেসবুক ওয়ালে একটি মানবিক আবেদন জানান।
আবেদনে শেষের দিকে তিনি উল্লেখ করেন, ‘সঠিক চিকিৎসা হলে তাদের দুজনকে পৃথক করে সুস্থ ও সুন্দর জীবন প্রদান করা সম্ভব। কিন্তু, গরিব দম্পত্তির পক্ষে চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন সম্ভব নয়। 
জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথাসম্ভব সহযোগিতা করা হচ্ছে। সমাজের সর্বস্তরের সকলকে সার্বিক সহযোগিতার জন্য অনুরোধ করা হলো।’

এমন আবেদনের প্রেক্ষিতে অনেকেই সহযোগিতার হাত বাড়াতে আশ্বাস দেন। তারপরেও রবিবার সন্ধ্যায় নবজাতকের জরুরিভিত্তিতে ঢাকায় নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা দিতে লাল মিয়ার হাতে ব্যক্তিগতভাবে নগদ ২৫ হাজার টাকা তুলে দেন ইউএনও সুজাউদ্দৌলা।

এ সময় লাল মিয়ার শ্বশুর আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা দিনমজুর মানুষ। জীবনেও এই সন্তানদের চিকিৎসা দেওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব হতো না। মানুষ মানুষের জন্য কিভাবে চিন্তিত হয় ও সহযোগিতা করে তার বাস্তব উদাহরণ ইউএনও স্যার।

এনিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুজাউদ্দৌলা বলেন, আমরা মানুষ। মানবিক কারণে নবজাতকদের পাশে দাঁড়ানো সবার দায়িত্ব। ঢাকা পৌঁছানোর মতো কিছু নগদ টাকা দেওয়া হয়েছে। আমি ডিসি স্যারের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনিও সহযোগিতা করবেন। মোটকথা, তাদের চিকিৎসা থেমে থাকবে না। আমরা আছি।

উল্লেখ্য, ১৫ এপ্রিল সোমবার জলঢাকা ডে-নাইট ক্লিনিকে সিজারিয়ানের মধ্য দিয়ে ভূমিষ্ঠ জোড়া লাগানো মেয়ে নবজাতক। তাদের নিতম্বের নিচ থেকে জোড়া লাগানো। এদের পায়ুপথ একটি ও প্রস্রাবের পথও একটি।

মন্তব্য