kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

পাথরঘাটায় বিদ্যালয়ের বারান্দা থেকে ১৮টি ল্যাপটপ উদ্ধার

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ১৮:২৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাথরঘাটায় বিদ্যালয়ের বারান্দা থেকে ১৮টি ল্যাপটপ উদ্ধার

বরগুনার পাথরঘাটায় কে এম সরকারি মাধমিক বিদ্যালয়ের বারান্দা থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ১৮টি নতুন ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়েছে। গত ৯ মার্চ ওই বিদ্যালয় থেকে ২০টি নতুন ল্যাপটপ চুরি হলে বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকসহ চার জনের মুচলেকা দেওয়ার ১০ দিনের মধ্য পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া গেল ল্যাপটপগুলো।

পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হানিফ সিকদার স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান,   রবিবার সকাল ৮টার দিকে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী মো. সগির হোসেন স্কুলে এসে বারান্দার পূর্বদিকে দুটি কার্টুন দেখে স্কুলের প্রধান শিক্ষক নুরুল আলমকে বিষয়টি অবহিত করেন। তাৎক্ষণিক প্রধান শিক্ষক নুরুল আলম বিষয়টি থানায় জানান। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে কার্টুন খুলে ভিতর থেকে ১৮ টি নতুন ল্যাপটপ উদ্ধার করে।

ঘটনা শুনে পুলিশের পাথরঘাটা সহকারী পুলিশ সুপার মো. আশরাফউল্লাহ তাহের, পাথরঘাটা পৌর মেয়র মো. আনোয়ার হোসেন আকন ও উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. জাবির হোসেনসহ সাংবাদিকগণ এ সময় বিদ্যলয়ে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৯ মার্চ ওই বিদ্যালয় এর আইসিটি ল্যাব থেকে নতুন ২০টি ল্যাপটপ চুরি হয়ে যায়। স্কুল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নির্দেশে পাথরঘাটা থানায় একটি চুরির মামলা রুজু হয়। চুরি যাওয়ার পরে পুলিশ বিদ্যলয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক বিরেন্দ্র নাথ বেপারী, সহকারী শিক্ষক মো. মুরাদুল হক, দপ্তরি ইউসুফ আলী হাওলাদার ও ফজলুল হক সগিরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়। এক সপ্তাহের মধ্যে চুরি যাওয়া ল্যাপটপ ফেরত দেওয়ার শর্তে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান।

মামলার বাদী ও বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. আবদুর রহিম জানান, ল্যাপটপগুলো কে বা কারা রেখে গেছে তা এখনো স্পস্ট নয়।

উদ্ধার হওয়া ল্যাপটপ ওই স্কুলের কিনা তা যাচাই করে দেখা হচ্ছে বলে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হানিফ সিকদার জানান।

মন্তব্য