kalerkantho

সোমবার। ২৭ মে ২০১৯। ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২১ রমজান ১৪৪০

সীতাকুণ্ডে নবম শ্রেণির ছাত্রকে পিটিয়ে জখম করল শিক্ষক

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ০১:২০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সীতাকুণ্ডে নবম শ্রেণির ছাত্রকে পিটিয়ে জখম করল শিক্ষক

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড সরকারি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে শাওন (১৫) নামক ৯ম শ্রেণির এক ছাত্রকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছেন শিক্ষক। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে শিক্ষক এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে ছাত্রটির অভিযোগ। 

এ ঘটনার প্রতিকারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে একটি ভিডিও আপলোড করেছে ছাত্রটির সহপাঠীরা। তবে সংশ্লিষ্ট শিক্ষক দাবি করেছেন তিনি ছাত্রটিকে শাষণ করেছেন মাত্র। এটি বড় কোন ঘটনা নয়।

অভিযোগে জানা যায়, গতকাল শনিবার দুপুর আনুমানিক ১২টার দিকে সীতাকুণ্ড সরকারি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণির (বাণিজ্য বিভাগে) ক্লাস নিচ্ছিলেন শিক্ষক মো. গোলাম সরওয়ার। সে সময় ওই ক্লাসের ছাত্র নুরুল হাসান শাওনকে (১৫) পাশের এক ছাত্রকে ডাকতে দেখেন তিনি। 

ক্লাসের ভেতরে অন্যদিকে মনযোগ দিতে দেখে শিক্ষক গোলাম সরওয়ার ক্ষিপ্ত হয়ে শাওনকে ব্যাপক মারধর করেন। এতে শাওনের হাত, পিঠ, মুখসহ বিভিন্ন স্থান ফুলে ও কালো হয়ে ব্যথা বেদনা শুরু হলে শাওনের সহপাঠী মুনাম, ইজাজ ও আইমন তার খালি গায়ে আঘাতের চিহ্ন ভিডিওতে ধারণ করে তা ফেসবুকে আফলোড করে। এতে সামাজিক মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভুক্তভোগী ছাত্র শাওন প্রতিবেদককে জানায়, শনিবার বেলা আনুমানিক ১২টার দিকে ক্লাসে থাকা অবস্থায় অন্য একটি ছেলেকে ডাকার অপরাধে শিক্ষক গোলাম সরওয়ার তাকে হাতে, পিঠে ও মুখে বেত দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে। প্রচণ্ড ব্যাথার কারণে তাকে ঔষধ খেয়ে থাকতে হচ্ছে। শাওনের বাবা মো. নুরুল হুদা জানান, শিক্ষকের বেত্রাঘাতে তার ছেলের শরীরের হাত, পিঠ ব্যাপকভাবে ফুলে গেছে। এভাবে মারধর করায় ছেলেকে চিকিৎসা দিতে হয়েছে। তিনি মনে করেন এভাবে মারধর করা উচিত হয়নি।

এদিকে অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে সীতাকুণ্ড সরকারি আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. গোলাম সরওয়ার সাংবাদিকদের বলেন, ছাত্র শাওন তার সামনে বসা অন্য একজন ছাত্রকে কলম দিয়ে আঘাত করছিল। তাই আমি তাকে শাসন করেছি। এতে যদি অন্যায় কিছু হয়ে থাকে আমার করার কিছু নেই। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সেলিম বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে কেউ আমাকে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দেয়নি।

উক্ত বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, আমিও ঘটনাটি ফেসবুকে দেখেছি। কিন্তু আমাকে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

মন্তব্য