kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

বেতাগীতে আগুনে সর্বস্ব হারানো পরিবারগুলো ডুঁকরে কাঁদছে

বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি   

১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ২০:২৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেতাগীতে আগুনে সর্বস্ব হারানো পরিবারগুলো ডুঁকরে কাঁদছে

বরগুনার বেতাগীতে আগুনে সর্বস্ব হারানো পরিবারগুলো ডুঁকরে কাঁদছে। এখনো তাদের কোনো সহায়তা মেলেনি। ফলে চরম অসহায়ত্বের মধ্যে জীবন কাটাচ্ছেন তারা। তবে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাকসুদুর রহমান ফোরকান ক্ষতিগ্রস্থদের বাড়ি গিয়ে সমবেদনা ও সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। 

গত ৯ এপ্রিল রাতে উপজেলার বেতাগী বাসস্ট্যান্ডে পেট্রলের আগুনে সাতটি দোকান পুড়ে মুহূর্তের মধ্যে ছাই হয়ে যায়। এতে ক্ষতিগ্রস্থ গ্যাস সিলিন্ডার ও পেট্রল ব্যবসায়ী লিটন বিশ্বাস, রুবেল হাওলাদার, চায়ের দোকানদার প্রতিবন্ধী খোকন, গ্রেজ মালিক হারুন, খুচরা যন্ত্রাংশ বিক্রেতা সবুর ও গফুর, সেলুন মালিক উত্তম শীল ও ঋষি অনিল চন্দ্র ঋণ করে এতদিন ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল। হঠাৎ এ দুর্যোগ তাদের পথে বসিয়ে দেয়। 

ক্ষতিগ্রস্থরা বলেন,‘ ঘটনার দুই সপ্তাহ অতিবাহিত হলেও এখনো তাদের পাশে এসে কেউ দাঁড়ায়নি। মেলেনি কোন সহায়তা।’ 

শুক্রবার এই বিষয়ে কথা হয় অভি এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী বেতাগী পৌরসভার ২ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা রুবেলের সাথে। তিনি অশ্রুসিক্ত নয়নে বলেন, ‘রূপালী ব্যাংক বেতাগী থেকে এসএমই ঋণ পাঁচ লাখ, এনজিও কোডেক থেকে এক লাখ টাকা উত্তোলন করে এবং আরো এক লাখ টাকা নিয়ে ব্যবসা করি। সেই অর্থে হাতবদল করে বেশ সুনামের সাথে ব্যবসা চালিয়ে স্ত্রী, সন্তান, মা ও ভাইসহ ৮ সদস্যের পরিবারের ভরণপোষণ করছিলাম। কিন্তু আগুন নগদ এক লাখ ১০ হাজার টাকাসহ সব কিছু কেঁড়ে নিয়েছে। এখন ঋণের টাকা বোঝা হয়ে দাঁড়ানোর পাশাপাশি সংসারের জীবিকা নির্বাহে চরম কষ্টের মধ্যে দিনাতিপাত করতে হচ্ছে।’

মন্তব্য