kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

দিরাইয়ে শিবমন্দিরে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

দিরাই-শাল্লা (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৩ মার্চ, ২০১৯ ১৮:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দিরাইয়ে শিবমন্দিরে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে রাতের আঁধারে হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি শিবমন্দিরে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ নিয়ে এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের শ্রী নারায়ণপুর গ্রামে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের শিবমন্দিরে অজ্ঞাত দৃর্বৃত্তরা আগুন ধরিয়ে দেয়। ঘরটি খালি থাকায় তেমন ক্ষয়ক্ষতির ঘটনা ঘটেনি। এদিকে ঘটনাটিকে পরিকল্পিত নাশকতা বলে অভিহিত করেছেন শ্রী নারায়ণপুর গ্রামবাসী।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, শ্রী নারায়ণপুর গ্রামের দক্ষিণ প্রান্তে অবস্থিত দেবোত্তর সম্পত্তিতে মন্দিরটির অবস্থান। একপাশে মহাদেব গাছ, অদূরেই শ্মশান, মাঝে নাথ মন্দির ও অন্যপাশে কিছুটা উঁচু স্থানে রয়েছে শিবমন্দির। ঘরের ভিতরে পাওয়া যায় কেরোসিনের বোতল। কেরোশিন ছিটিয়ে মেঝেতে খড় দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বেড়া, চালা ও মেঝেতে আগুনের ছোপ ছোপ দাগ।

শিব মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি সচী দাস জানান, পূজানুষ্ঠানের সময়ে ঘরটিতে শিব মূর্তি স্থাপন করা হয়। বর্তমানে ঘরটি খালি অবস্থায় আছে। গত রাতের কোনো এক সময়ে কে বা কারা ঘরটিতে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক দ্বীজেন দাস বলেন, মন্দিরে আগুন দেওয়ার ঘটনায় শুধু শ্রী নারায়ণপুর গ্রামবাসী নয় এই এলাকার সকল সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষ মর্মাহত।

শ্রী নারায়ণপুর গ্রামের রাসেন্দ্র দাস, রানু দাস, শ্রীকান্ত দাস, অরবিন্দু দাসসহ অনেক গ্রামবাসী বলেন, শিবমন্দিরের ভূমি পার্শ্ববর্তী হলিমপুর গ্রামের কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে বেদখলের চেষ্টা করে আসছে। গত ৩/৪ দিন যাবৎ হলিমপুর গ্রামের নাছির, রেজ্জাক, শারজুল, জামালসহ তাদের লোকজন মন্দিরের ভূমি হতে জোরপূর্বক মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে। আমরা নিষেধ দিলেও শোনেনি। বাধ্য হয়ে আমরা দিরাই থানায় লিখিত অভিযোগ দেই। পুলিশ এসে তাদের মাটি কাটা বন্ধ করতে বলে। পুলিশ যাবার পরপরই আবার মাটি কাটা শুরু করে। আমাদের হুমকি ধমকি দিয়ে বলে, বাড়াবাড়ি করলে গ্রাম থেকে আমাদের বিতাড়িত করবে।

তারা আরো বলেন, আমরা নিরীহ শান্তিপ্রিয় মানুষ। আমাদের মাঝে ভীতি সৃষ্টি করতেই পরিকল্পিতভাবে মন্দিরে আগুন দেওয়া হয়েছে।

দিরাই থানার অফিসার ইনচার্জ (দায়িত্বপ্রাপ্ত) এ বি এম দেলোয়ার হোসেন বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে ফোর্সসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছি। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা