kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নওগাঁয় স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে 'লং রান'

নওগাঁ প্রতিনিধি   

২৩ মার্চ, ২০১৯ ১৬:৫৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নওগাঁয় স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে 'লং রান'

নওগাঁয় 'লং রান ফর ডেভলপমেন্ট বাংলাদেশ' অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ২৬শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এই লং রান প্রতিযোগিতা ২০১৯ আয়োজন করা হয়। শনিবার সকাল ৮টায় শহরের সার্কিট হাউস চত্বর থেকে এ দৌড় প্রতিযোগিতা শুরু হয়। ২৬শে মার্চ স্টেডিয়াম পর্যন্ত প্রায় ছয় কিলোমিটারের এই প্রতিযোগিতায় স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন বয়সী প্রায় সহস্রাধিক মানুষ অংশ নেন। সার্কিট হাউজে জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান এই দৌড় প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করেন। পুরুষদের জন্য সার্কিট হাউজ থেকে এবং মহিলাদের জন্য দৌড় শুরু হয় সর উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে।

২৬শে মার্চ  সার্কিট হাউজে শুরুর স্থান থেকে সর্বশেষ স্থান স্টেডিয়াম পর্যন্ত অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ স্লোগানে বর্তমান সরকারের ঘোষিত পাঁচটি ভিশন-সংবলিত ৫টি স্টল প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এগুলো হচ্ছে কাজির মোড়ে এলাকায় স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ২০১৯ মধ্যম আয়ের দেশ, মুক্তিরমোড় এলাকায় এসডিজি ২০৩০ উন্নয়ন জংশন, পুরাতন বাস টার্মিনাল এলাকায় সোনার বাংলা ২০১৪১ উন্নত দেশ, তাজের মোড় এলাকায় ২০৭১ স্বাধীনতার ১০০ বছর পূর্তি সমৃদ্ধির সর্বোচ্চ শিখর এবং নওগাঁ স্টেডিয়ামে শেষ প্রান্তে ২১০০ ডেল্টা প্ল্যান নিরাপদ ব-দ্বীপ।

এই দৌড়ে অংশগ্রহণকারীরা যেকোনো পয়েন্ট থেকে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। পুরুষরা সার্কিট হাউস থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত এবং মহিলাদের সদর উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত দৌড় সম্পন্ন করলেই কেবলমাত্র প্রতিযোগিতার আওতায় এনে পুরুষ এবং নারীদের মধ্য থেকে সর্বোচ্চ ৩০ জন প্রতিযোগীকে পুরস্কৃত করা হবে। তবে অংশগ্রহণকারীরা যেকোনো পয়েন্ট থেকে অংশগ্রহণ করতে পারবেন আবার যেকোনো পয়েন্টে এসে তার দৌড় শেষ করতে পারবেন। আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হবে।   

উল্লেখ্য, সকাল ৮টায় নওগাঁ সার্কিট হাউসের সামনে শহরের প্রধান সড়কে শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে এই প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মিজানুর রহমান। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মাহবুবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম মো. শাহনেওয়াজ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. কামরুজ্জামান ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক উত্তম কুমার রায় প্রমুখ।

এই প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে প্রায় ১ হাজার পুরুষ এবং প্রায় শতাধিক নারী অংশ নেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা