kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

ঈশ্বরদীর এটিএম উচ্চ বিদ্যালয়ের পুনর্মিলনী

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি    

২২ মার্চ, ২০১৯ ১৬:০৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈশ্বরদীর এটিএম উচ্চ বিদ্যালয়ের পুনর্মিলনী

'আর একটি বার আয় রে সখা, প্রাণের মাঝে আয়'- রবীন্দ্রনাথের গানের এই চরণটিকে স্লোগান হিসেবে ব্যবহার করে ঈশ্বরদীর আলহাজ্ব টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয় (এটিএম উচ্চ বিদ্যালয়) প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর পর প্রথমবারের মতো পুনর্মিলনী উৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আজ (শুক্রবার) ঈশ্বরদী শহরের প্রাণকেন্দ্র ঈশ্বরদী-কুষ্টিয়া সড়কের ভেলুপাড়া আলহাজ্ব টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কয়েক হাজার সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীর উপস্থিতিতে জাতীয় পতাকা ও ৫০টি বেলুন ফেস্টুন উড়িয়ে বর্ণিল আয়োজন উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর সহধর্মিনী মিসেস কামরুন্নাহার শরীফ।

পুনর্মিলনী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক আব্দুল হাইয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্মৃতিচারণ করে অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা চেয়ারম্যান মকলেছুর রহমান মিন্টু, পৌরসভার মেয়র আবুল কালাম আজাদ মিন্টু, সংশ্লিষ্ট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সেলিম আক্তার, প্রেস ক্লাব সভাপতি স্বপন কুমার কুণ্ডু, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোজাম্মেল হোসেন, সাবেক ছাত্র ইদ্রিস আলী মণ্ডল, আমেরিকা প্রবাসী রবিউল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজসেবক জালাল উদ্দিন তুহিন প্রমুখ।

এর আগে সকাল ৯টায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে থাকা সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থী প্রিয় প্রতিষ্ঠানের ৫০ বছর পূর্তিতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় নবীন-প্রবীণ শিক্ষক, সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। ভূমি কর্মকর্তা বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠক আফসার আলীর সঞ্চালনায় পুনর্মিলনী কমিটির পক্ষ থেকে প্রয়াত, সাবেক ও বর্তমান শিক্ষক, আলোকিত মানুষসহ ৩৫ জন কৃতি মানুষকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। 

পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী মুহিন ও স্থানীয় শিল্পীরা।

৬০ এর দশকে ঈশ্বরদী শহরের প্রবেশদ্বারে আলহাজ্ব টেক্সটাইল মিলস কারখানা গড়ে তোলা হয়। এই কারখানায় কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকদের ছেলে-মেয়েদের শিক্ষার জন্য কারখানার নিজস্ব জমিতে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয়। বিদ্যালয়টির প্রথম প্রধান শিক্ষক ছিলেন প্রয়াত আক্তারুজ্জামান তালুকদার। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা