kalerkantho

গোপালগঞ্জে ভোটারদের মধ্যে সাড়া ফেলতে পারিনি মক (ড্যামি) ভোটিং

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

২২ মার্চ, ২০১৯ ১৪:৪৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গোপালগঞ্জে ভোটারদের মধ্যে সাড়া ফেলতে পারিনি মক (ড্যামি) ভোটিং

গোপালগঞ্জে ইভিএম পদ্ধতিতে মক (ড্যামি) ভোটিং ভোটারদের মধ্যে সাড়া ফেলতে পারিনি। আজ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ১১৪টি কেন্দ্রে একযোগে মক ভোটিং অনুষ্ঠিত হয়। এসব কেন্দ্রেই নির্বাচনী কর্মকর্তারা ইভিএম মেশিন নিয়ে কেন্দ্রে উপস্থিত হন। গোপালগঞ্জ পৌরসভার বেশ কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে ভোটার উপস্থিতি চোখে পড়েনি। দুই একজন করে ভোটার আসছে মক ভোটিংয়ে অংশ নিতে। তবে এসব কেন্দ্রে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা আশা করছেন ভোটের দিন উপস্থিতি বাড়বে।

গোপালগঞ্জ শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে পশ্চিম গোপালগঞ্জ উচ্চ বালিকা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, সকাল ১০টায় মক ভোটিংয়ের জন্য কেন্দ্র নির্বাচনী কর্মকর্তারা উপস্থিত হয়েছেন। বেলা ১১টা পর্যন্ত এ কেন্দ্রে মাত্র দুইজন ভোটার মক ভোটিংয়ে অংশ নেন।

গোপালগঞ্জ শহরের এস এম মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুপুর পৌনে ১২টা পর্যন্ত মাত্র চারজন ভোটার মক ভোটিংয়ে অংশ নিয়েছেন। এ কেন্দ্রের ভোটার ১ হাজার ৭১৪ জন।

এ কেন্দ্রে মক ভোটিংয়ে অংশ নেওয়া সাইফুল্লাহ রাজু বলেন, ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট দেওয়া খুব সহজ। এ পদ্ধতিতে কোনো কারচুপি হওয়ার সম্ভবনা নেই। আর এ পদ্ধতিতে যার ভোট সে দিবে, এটা নিশ্চিত হবে।

এই কেন্দ্রে দায়িত্বরতঃ প্রিসাইডিং অফিসার মোঃ শাহীন ভোটার উপস্থিত না হওয়া প্রসঙ্গে বলেন, বিভিন্ন কারণে ভোটরা ভোট দেওয়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছেন। তাই মক ভোটিংয়ে ভোটার উপস্থিতি নগন্য। তবে ভোটারদের কেন্দ্রে আনার জন্য প্রার্থীদেরও দায়িত্ব রয়েছে। 

তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, আগামী ২৪ মার্চ চূড়ান্ত ভোট গ্রহণে ভোটার উপস্থিতি বাড়বে।

মক ভোটিংয়ে অংশ নেওয়া অপর এক ভোটার আলামিন ইসলাম জানিয়েছেন, ইভিএম পদ্ধতিতে স্বাচ্ছন্দে ভোটাধিকার প্রয়োগ করা যায়। এ পদ্ধতিতে জাল ভোট দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

গোপালগঞ্জ জেলা নির্বাচন অফিসার মুন্সী ওহিদুজ্জামান বলেছেন, আগামী ২৪ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। আর ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটারদের সচেতন করতে ও মক ভোটিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ জন্য গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ১১৪টি কেন্দ্রে শুক্রবার একযোগে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মক ভোটিং অনুষ্ঠিত হয়। 

তিনি আরো জানান, সকালে ভোটার উপস্থিতি কম হলেও জুম্মার নামাজের পর ভোটার উপস্থিতি বাড়বে। আর মক ভোটিংয়ে ভোটার উপস্থিতি কাঙ্খিত না হলেও ২৪ তারিখে কাঙ্খিত সংখ্যক ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

প্রসঙ্গত, গোপালগঞ্জ জেলার ৫টি উপজেলায় মোট ৬৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৯ জন, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ২৮ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২০ জন। জেলায় মোট ৮ লাখ ৮০ হাজার ৯৪৫ জন ভোটার তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন।

মন্তব্য