kalerkantho

রবিবার । ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৭ রবিউস সানি                    

ফলোআপ

ধুনটে সাব রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করায় দলিল লেখককে শোকজ

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

১৯ মার্চ, ২০১৯ ১৭:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধুনটে সাব রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করায় দলিল লেখককে শোকজ

বগুড়ার ধুনটে সাব রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে অর্থ আদায়ের অভিযোগ করায় জালাল উদ্দিন নামে এক দলিল লেখককে কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার সকালের দিকে ৭ কার্যদিবসের মধ্যে জবাব চেয়ে এই শোকজ নোটিশ প্রদান করেন সাব রেজিস্ট্রার রিপন মণ্ডল। 

 অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ধুনট পৌর এলাকার চরপাড়া গ্রামের মমতাজ বেগম উপজেলা হিসাব রক্ষণ কার্যালয়ে অফিস সহায়কের কাজ করে। তার শ্বশুর ইব্রাহীম সেখ ও শাশুড়ি হালিমা খাতুন ধুনট মৌজার চরপাড়া গ্রামের বেগম খাতুন আকলিমাসহ ৮ জনের নিকট থেকে ১০ শতক জমি ক্রয় করেন। ওই জমির খতিয়ান নম্বর ৮০৮৬ এবং দাগ নম্বর ৬৮৮৬। 

গত ১২ মার্চ ওই জমির দলিল নিবন্ধনের সময় সাব রেজিস্ট্রার জমির কাগজপত্রে নানা ভুলভ্রান্তি দেখিয়ে মমতাজ বেগমের নিকট থেকে ১২ হাজার টাকা নিয়ে দলিল নিবন্ধন করেছে। যার নং ১৬১৭। ওই জমির দলিল লেখক (মহরার) জালাল উদ্দিনের মাধ্যমে মমতাজ বেগমের নিকট থেকে ১২ হাজার টাকা নিয়েছেন সাব রেজিস্ট্রার। 

এ ঘটনায় ১৩ মার্চ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট সাব রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে মমতাজ বেগম অভিযোগ দিয়েছে। ওই অভিযোগটি সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিনাত রেহানা তদন্ত করছেন। এ বিষয়ে ১৮ মার্চ কালের কণ্ঠ পত্রিকায় সাব রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। 

দলিল লেখক জালাল উদ্দিন বলেন, প্রথমে ১২ হাজার টাকা দিতে অস্বীকার করায় দলিল নিবন্ধন করতে রাজি হননি। পরে সাব রেজিস্ট্রারকে ১২ হাজার টাকা দিয়ে জমির দলিল নিবন্ধন করা হয়েছে। এ ঘটনায় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় সাব রেজিস্ট্রার ক্ষুব্ধ হয়ে আমার বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ দিয়েছে। আমি এ বিষয়টি আইনগতভাবে মোকাবেলা করবো।
 
এ বিষয়ে সাব রেজিস্ট্রার রিপন মণ্ডল বলেন, দলিল নিবন্ধনের নামে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগে জালাল উদ্দিন নামে এক দলিল লেখককে শোকজ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। নোটিশের সন্তোষজনক জবাব না পেলে তার সনদ (লাইসেন্স) বাতিল করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা