kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

নিউজিল্যান্ডে হামলায় নিহত বিশ্বনাথের গৃহবধূর পরিবারে শোকের মাতম

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি   

১৫ মার্চ, ২০১৯ ২৩:৫১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিউজিল্যান্ডে হামলায় নিহত বিশ্বনাথের গৃহবধূর পরিবারে শোকের মাতম

ছবি : কালের কণ্ঠ

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হেগলি ওভাল মাঠের নিকটবর্তী আল-নূর মসজিদে নামাজ পড়তে গিয়ে সন্ত্রাসীর গুলিতে নিহত হয়েছেন সিলেটের বিশ্বনাথের পুত্রবধূ। নিহতের নাম হোসনে আরা পারভীন বেগম (৪৫)। তিনি বিশ্বনাথ উপজেলার বিশ্বনাথ ইউনিয়নের উত্তর মিরেরচর গ্রামের ফরিদ উদ্দিনের স্ত্রী। আজ শুক্রবার নিউজিল্যান্ডে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামীর বাড়ির পরিবারে চলছে শোকের মাতম।

জানা গেছে, নিউজিল্যান্ডের আল-নূর মসজিদে নামাজ পড়তে যান হোসনে আরা পারভীন ও স্বামী ফরিদ উদ্দিন। ফরিদ উদ্দিনকে পুরুষ কক্ষে রেখে মহিলা কক্ষে নামাজ পড়তে যান তিনি। এ সময় সন্ত্রাসীরা গুলি চালায় মুসল্লিদের ওপর। পুরুষদের কক্ষে গুলাগুলির শব্দ শুনে অসুস্থ স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে সন্ত্রাসীর গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন ফরিদ উদ্দিনের স্ত্রী।

শুক্রবার সরেজমিনে নিহত হোসনে আরা পারভীন বেগমের স্বামীর বাড়ি উপজেলার উত্তর মিরেরচর গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, নিহত হোসনে আরা বেগমের ভাসুরসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা কান্নায় ভেঙে পড়েছেন। খবর পেয়ে গ্রামের আশপাশের লোক তাদের শান্তনা দিতে ছুটে আসেন। কিন্তু তারপর তাদের কান্না যেন থামছিল না।
 
নিহতের ভাসুর মঈন উদ্দিন জানান, শুক্রবার বিকেলে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারি হোসনে আরা পারভীন সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। ফরিদ উদ্দিন একজন প্যারালাইসিস রোগী। আজ শুক্রবার মসজিদে হুইল চেয়ারে করে নামাজ পড়াতে নিয়ে যান স্ত্রী। দীর্ঘ ২৮ বছর ধরে ভাই (ফরিদ উদ্দিন) নিউজিল্যান্ডে আছেন। তিনি প্রথমে ভিজিট ভিসায় নিউজিল্যান্ডে যান এবং পরে সে দেশের নাগরিকত্ব লাভ করেন। ফরিদ উদ্দিন সেখানে মুসলিম কমিউনিটির সাধারণ সম্পাদক তিনি প্রতি শুক্রবার আল-নূর মসজিদের ইমামের আরবী খুতবা পাঠকে (ইংরেজীতে) অনুবাদ করে মুসল্লিদের শোনান।

তিনি জানান, নিউজিল্যান্ডের যাওয়ার প্রায় চার বছর পর ফরিদ আহমদ হোসনা বেগমকে বিয়ে করেন। ভিজিট ভিসা হোসন বেগমকে সে (ফরিদ) নিউজিল্যান্ডে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের বিয়ের হয়। বিয়ের পর তাদের একটি মেয়ে সন্তান হয়। তাঁর নাম শিপা বেগম (১০)। ফরিদ আহমদ নিউজিল্যান্ডে যাওয়ার পর প্রায় ২০ বছর আগে একবার দেশে এসেছিলেন। কিন্তু প্রায় ৬ বছর আগে হোসনা বেগম তার একমাত্র মেয়েকে নিয়ে দেশে এসেছিলেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা