kalerkantho

তুচ্ছ ঘটনায় মারামারি চার নারীসহ ১০ জন আহত, আটক ১

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০৩:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তুচ্ছ ঘটনায় মারামারি চার নারীসহ ১০ জন আহত, আটক ১

ঢাকার ধামরাইয়ে বাড়ির সীমানায় বেড়া দেওয়ার সময় প্রতিবেশীরা বাধা দিলে উভয়পক্ষের মধ্যে ব্যাপক মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে উভয় পক্ষের নারীসহ ১০ জন আহত হয়েছে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ মানিক নামের একজনকে আটক করেছে। এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। ঘটনাটি ঘটেছে চৌহাট ইউনিয়নের বাংগলা গ্রামে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বাংগলা গ্রামের মোজাফ্ফর হোসেন গতকাল বুধবার বিকেলে বাড়ির সীমানায় বেড়া দেওয়ার সময় প্রতিবেশী আব্দুর রাজ্জাক বাধা দেয়। এতে উভয়ের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে উভয় পরিবারের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এসময় মোজাফফর হোসেনের নাতনী ওয়ার্সি উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী নুপুরকে মারপিট করে রাজ্জাকের স্ত্রী। এ ঘটনা জানতে পেরে চৌহাট থেকে নুপুরের বাবা নরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে গেলে তাকেও বেদম মারপিট করা হয়। 

এ ঘটনা নরুল ইসলামের স্বজনরা জানতে পেরে বাংগলা গ্রামে গেলে তাদেরও মারপিট করা হয়। দু’দফা ধাওয়াধাওয়ির খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এ সময় মানিক নামের একজনকে আটক করে পুলিশ। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে মারপিটের ঘটনায় আহত হয় নুরুল ইসলাম, বিপ্লব, শাকিল, মোজাফফর, সালেহা, ময়নাল, লাইলীসহ ১০ জন আহত হয়। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। নুরুল ইসলাম ও বিপ্লবের মাথায় গুরুতর জখম হয়েছে। তাদের অবস্থা আশঙ্কা বলে জানা গেছে। 

কাওয়ালীপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস আই কামরুজ্জামান বলেন, বর্তমানে চৌহাট এলাকায় শান্ত অবস্থা বিরাজ করছে। 

স্থানীয় চেয়ারম্যান পারভীন হাসান প্রীতি বলেন, বাংগলা গ্রামে ব্যাপক মারামারির ঘটনা ঘটেছে। তবে মিমাংসার চেষ্টা চলছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা