kalerkantho

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বললেন

বাংলাদেশে সুশাসনের বাতাস প্রবাহিত হচ্ছে

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

২৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:০৩ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বাংলাদেশে সুশাসনের বাতাস প্রবাহিত হচ্ছে

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, আমাদের অঙ্গীকার অনুয়ায়ী গত ১০ বছরে বাংলাদেশে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। যে প্রান্তেই আপনারা চোখ দিবেন সেই প্রান্তেই অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে।

আজ বুধবার দিনাজপুর গোর-এ শহীদ বড় ময়দানে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, দিনাজপুরে যে উন্নয়নগুলো হয়েছে সেগুলো সব দৃশ্যমান। এই দিনাজপুর একটি ঐত্যহবাহী জেলা, সেই অতিহ্যকে আমাদেরকে ধারণ করতে হবে। সেই ঐতিহ্যের জায়গা থেকে আমরা সরে যেতে চাই না। সেই ঐতিহ্যকে ধারণ করে আমরা দিনাজপুরের মানুষ বাংলাদেশে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে চাই। বাংলাদেশের অন্য জেলার থেকে দিনাজপুরের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বালবাসা অন্যরকম। তিনি কৃতজ্ঞ ও সহানুভূতিশীল। কারণ আমরা যদি ৫৪ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত দিনাজপুরের মানুষ কখনো নৌকাকে ছেড়ে যায়নি। এইদিনাজপুরের মানুষ নৌকাকে আকড়ে ধরে অধিকার প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করেছে। এই দিনাজপুরের মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে বীরত্ব গাথা ইতিহাস সৃর্ষ্টি করছে। এই দিনাজপুরের মানুষ ৭৫ পরবর্তী সামরিক জান্তা জিয়া এরশাদের বিরুদ্ধে লড়াই সংগ্রাম করেছে। কখনো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে সরে যায়নি। শেখ হাসিনার নেতৃত্ব থেকে কখনো সরে যায়নি।

তিনি বলেন, তারপরও আমরা দেখতে পাই এই দিনাজপুরে বারবার আঘাত করার চেষ্টা করা হয়েছে। দিনাজপুরে আওয়ামী লীগের ঐক্যকে ধ্বংস করার জন্য, ঐক্যে ফাটল ধরানোর জন্য বারবার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু দিনাজপুরের মানুষ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাস করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এক্যবদ্ধ। কোনো অপশক্তি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে কখনো দাবিয়ে দিতে পারে নাই। সেটা ইাতহাস প্রমাণ করে।

তিনি বলেন, আজকে আমরা পবিত্র শহীদ মিনারের এই মঞ্চ থেকে বলতে চাই আগামী দিনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে যে উন্নয়ন হবে, বাংলাদেশের যে অগ্রগতি হবে দিনাজপুরের মানুষ ও দিনাজপুর কখনো বঞ্চিত হবে না। 

তিনি আরো বলেন, অনেক ঘাত প্রতিঘাতের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পথ অতিক্রম করেছে। ৭৫ এবঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করার পরে ২১ বছর আমরা অনেক কঠিন পথ পাড়ি দিয়েছি। আমাদের মিছিল থেকে অনেকে হারিয়ে গেছে। এই দিনাজপুরের মাটিতে অজয় দাস রক্ত দিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লিখে গেছে। আমরা কখনো আমাদের রাস্তা থেকে বিচ্যুত হইনি। ২১ বছরের লড়াই সংগ্রাম শেষে আমরা প্রথম বারের মতো সরকার গঠন করেছি। বাংলাদেশের স্বর্ণযুগ হিসেবে খ্যাত আছে ৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত।

২০০১ সালের ১ লা অক্টোবরের নির্বাচনে ষড়যন্ত্র করে বাংলাদেশকে হারিয়ে আওয়ামী লীগকে পরাজিত করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারপর আমরা দেখেছি জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসবাদ। আমাদের উপর হামলা চালানো হয়েছে। এই দিনাজপুরে বারবার আঘাত থেকে বাদ যায় নাই। দিনাজপুরের শান্তির আবাসভূমিতে হামলা করা হয়েছে। এই দিনাজপুরে সভামঞ্চে রক্তাক্ত করা হয়েছে। এই বাংলাদেশে সংসদ সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে। এই বাংলাদেশে প্রধান বিরোধী দলীয় নেতা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ২১শে আগস্ট হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ অনেক কঠিন পথ অতিক্রম করেছে। আজকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আমরা দেখছি কি অগ্রগতি, পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশকে কি সম্মানের জায়গায় নিয়ে গেছি। আমরা চতুর্থ বারের মতো বাংলাদেশের মানুষ আমাদেরকে ভোট দিয়েছে। দিনাজপুরের মানুষ ভোট দিয়েছে।

তিনি বলেন, দিনাজপুরে কোনো প্রকার মাস্তানতন্ত্র, কোনো ধরণের স্বৈরতন্ত্র চাই না। কেউ যদি কোনো প্রকার মালিকানা প্রতিষ্ঠা করার চেষ্টা করে তাহলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং সরকার তার দায়িত্ব গ্রহণ করবে না। 

বাংলাদেশে সুশাসনের বাতাস প্রবাহিত হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, এই বাতাস টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া পর্যন্ত প্রবাহিত হবে। শেখ হাসিনার প্রতি বাংলাদেশের মানুষের যে বিশ্বাস, দিনাজপুরের মানুষের যে বিশ্বাস সে বিশ্বাসের প্রতি যে আঘাত হানবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং সরকার তার দায়িত্ব গ্রহণ করবে না।

দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সবাপতি সাবেক মন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজিজুল ইমাম চৌধুরী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল, দিনাজপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শিবলী সাদিকসহ জেলার বিভিন্ন স্তরের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সর্বস্তরের মানুষ। এ সময় তারা মন্ত্রীকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা