kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৪ অক্টোবর ২০১৯। ৮ কাতির্ক ১৪২৬। ২৪ সফর ১৪৪১       

ফলোআপ

নিখোঁজ জুনায়েতের লাশ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

২০ জানুয়ারি, ২০১৯ ২০:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিখোঁজ জুনায়েতের লাশ উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩

তিন লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে সাটুরিয়া থেকে অপহৃত শিশু জুনায়েতের লাশ আজ রবিবার ভোরে একটি লেবু বাগান থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। জুনায়েতকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণ হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছে হত্যা কাণ্ডের সঙ্গে জড়িত মহিদুল হক, তার স্ত্রী সাগরিকা ও বন্ধু উজ্জল মিয়া। 

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সাটুরিয়ার উপজেলার জালসুকা গ্রামের বাড়ি থেকে প্রথম শ্রেণির ছাত্র জুনায়েত নিখোঁজ হয়। তার বাবা শামসুল হক পরেরদিন সাটুরিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এদিকে মোবাইল ফোনে তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। কথামত টাকা নিয়ে জুনায়েতের স্বজনরা সাভার ওভার ব্রিজে উপস্থিত থাকলেও অপহরণকারীরা টাকা নিতে আসেনি। বিষয়টি জানারপর র‌্যাব-৪ এর সদস্যরা মোবাইলফোন ট্র্যাাকিং করে জুনায়েতদের প্রতিবেশি  মহিদুল হক নামের এক যুবক তার স্ত্রী সাগরিকা ও বন্ধু উজ্জল মিয়াকে গত শনিবার রাতে কালিয়াকৈর থেকে আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের দেয়া তথ্য মতে রবিবার ভোরে লেবু বাগান থেকে জুনায়েতের লাশ উদ্ধার করা হয়। তবে শেয়াল কুকুর খেয়ে ফেলায় জুনায়েতের লাশ ছিল টুকরো টুকরো।  

র‌্যাব ৪ এর উপ অধিনায়ক মেজর আব্দুল হাকিম সাংবাদিকদের জানান, খেলনা কিনে দেওয়ার নাম করে জুনায়েতকে অপহরণ করা হয়। ওইদিনই তাকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে লেবু বাগানে লুকিয়ে রাখা হয়। পরে মুক্তিপণ চাওয়া হয়। র‌্যাব -৪ এর ডিএডি মহম্মদ ওয়াকিল সাংবাদিকদের জানান ঘটনাদৃষ্টে মনে হচ্ছে জুনায়েতকে বলাৎকার করার পর হত্যা করা হয়। 

জুনায়েতের বাবা মোঃ সামছুল হক জানান, তারও সন্দেহ ছিল মহিদুরলই তার ছেলেকে অপহরণ করেছে। কেননা নিখোঁজ হওয়ার আগে জুনায়েতের সাথে মহিদুলকে কথা বলতে দেখা গেছে।

সাটুরিয়া থানা ওসি আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা