kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

ডোমার সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি

ডোমার(নীলফামারী ) প্রতিনিধি   

১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডোমার সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে দলিল লেখকদের কর্মবিরতি

নীলফামারীর ডোমার সাব-রেজিস্ট্রার কার্যালয়ে গত দু‘দিন ধরে সাব-রেজিস্ট্রারের বিভিন্ন রকম হয়রানির প্রতিবাদে দলিল লেখকদের কর্মবিরতিতে ভোগান্তিতে পড়েছে দূর থেকে আগত জমির ক্রেতা ও বিক্রেতারা ।

মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিনে ঘুরে অনেকের ভোগান্তির চিত্র চোখে পড়েছে। জমি কিনতে আসা উপজেলার বামুনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইয়াসিন আলী জানান, দুইদিন হলো দলিল করার জন্য সাব-রেজিস্ট্রার অফিসে ঘুরছি ,দলিল করতে পারছি না। আমার বাড়ী উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১৬ কিলোমিটার দূরে । যার কাছ থেকে জমি কিনব তার বাড়ি নীলফামারীতে, এখান থেকে ২০/২২ কিলোমিটার দূরে, সেও দুইদিন থেকে ঘুরছে।

উপজেলার হরিণচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি তৈয়বুর রহমান ও পার্শ্ববতী দেবীগঞ্জ উপজেলার সোনাহার ইউনিয়ন থেকে  আসা হোসেন আলীর পুত্র মিজানুর রহমান (৪০) একই কথা বলেন।

এ ব্যাপারে ডোমার উপজেলা দলিল লেখক সমিতির সভাপতি নাসিমুল একরাম সুমন জানান, ছেলেমেয়ের বিয়ে, চিকিৎসা, বিভিন্ন জরুরী প্রয়োজনে জমি বিক্রি করতে আসে মানুষ। ৩টার পর যে সব দলিল দাখিল হয়, উনি তা নানা অজুহাতে দলিল সম্পন্ন না করে চলে যান ।

প্রতিদিন ৫/৬ টি থেকে খুব বেশি হলে ২০/২৫টি দলিল হয়। জনগণ দলিল করতে এসে খুবই হয়রানির শিকার হয়। তারই প্রতিবাদে আমরা কোনো কাজ করব না। কর্মবিরতিতে আছি। মানুষ দলিল করতে আসলে দলিল করতে হবে। কাগজপত্রে সমস্যা থাকলে সেটা নোট দিয়ে জানানো প্রয়োজন ।

এ ব্যাপারে ডোমার সাব-রেজিস্ট্রার শিরিনা  আকতার জানান, আমি দুপুর ৩টা পযর্ন্ত দলিল সাবমিট করলে তা গ্রহণ করি, দলিল সম্পন্ন করি। পরে আর গ্রহণ করি না। দলিল লেখকদের নোটিশ করা হয়েছে। উনাদের কাছে জানা হবে, কেন উনারা কর্মবিরতি করছেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা