kalerkantho

ভারত থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে ছয় রোহিঙ্গা

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০৪:৩৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারত থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে ছয় রোহিঙ্গা

ছবি : কালের কণ্ঠ

ভারত থেকে পালিয়ে ছয় রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। ভারত রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠাবে—এমন আশঙ্কায় এই ছয়জন গত তিন দিনে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন। এদিকে রোহিঙ্গা নেতারা জানিয়েছেন, ভারত থেকে পালিয়ে আসা আরো ছয় রোহিঙ্গা নাইক্ষ্যংছড়ির শূন্যরেখায় অবস্থান করছেন।

যে ছয়জন ইতিমধ্যে প্রবেশ করেছেন, তাঁদের মধ্যে আজিজ উল্লাহ নামের এক যুবক টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ওঠেন। এ ছাড়া নুরুল আলম নামের আরেক রোহিঙ্গা তাঁর পরিবারের চার সদস্যকে নিয়ে ওঠেন হোয়াইক্যং ইউনিয়নের উনচিপ্রাং ক্যাম্পে।

উনচিপ্রাং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নেতা (চেয়ারম্যান) মোহাম্মদ ইউছুফ বলেন, ‘কয়েক দিন আগে আমার ক্যাম্পে ভারত থেকে পালিয়ে একটি রোহিঙ্গা পরিবার ঢুকেছিল। তারা ভারতের জম্মু-কাশ্মীর থেকে এসেছে বলে জানায়। বিষয়টি ক্যাম্পের দায়িত্বরত ইনচার্জকে অবহিত করি। পরে তাঁদের ক্যাম্প থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়।’

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বরাত দিয়ে ইউছুফ আরো বলেন, ‘তাদের প্রত্যেকের হাতে ভারত ইউএনএইচসিআর প্রদত্ত রিফিউজি কার্ড রয়েছে। সম্প্রতি ভারত কিছু রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠায়। এই ভয়ে সেখানে অবস্থানরত রোহিঙ্গারা পালিয়ে বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা করছে।’

পালিয়ে আসা যুবক আজিজ উল্লাহ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা ছোট থাকতে বাবা পরিবার নিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন। তারপর আমি ভারতের জম্মু-কাশ্মীরে আশ্রয় নিয়েছিলাম। সেখানেই এক রোহিঙ্গা নারীর সঙ্গে আমার বিয়ে হয়। আমাদের মতো আরো প্রায় তিন হাজার রোহিঙ্গা পরিবার সেখানে রয়েছে।’

আজিজ বলেন, ‘ভারত সরকার রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার পাঠিয়ে দেবে—সেখানকার রোহিঙ্গাদের মধ্যে এখন এই ভয় ঢুকেছে। আমি জম্মু-কাশ্মীর থেকে তিন দিনে কলকাতা পৌঁছে সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করি।’

টেকনাফের শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ‘হেড মাঝি’ (প্রধান নেতা) আবুল কাশেম বলেন, ক্যাম্পে ভারত থেকে এক রোহিঙ্গা যুবক পালিয়ে আসার খবরটি শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের প্রতিনিধি ও টেকনাফ শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জকে অবহিত করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা