kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

বরগুনা ২ আসন

জাতীয় পার্টির প্রার্থীর পক্ষে যাত্রীদের খেয়া পারাপার ফ্রি

বামনা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৭:৪৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাতীয় পার্টির প্রার্থীর পক্ষে যাত্রীদের খেয়া পারাপার ফ্রি

জাতীয় পার্টি (এরশাদ) মহাজোটে থাকলেও বরগুনা ২ আসনে দলটির একক প্রার্থী দেওয়া হয়েছে। বরগুনা ২ (বামনা-পাথরঘাটা-বেতাগী) আসনে জাতীয় পার্টির একক প্রার্থী বিশিষ্ট শিল্পপতি মিজানুর রহমান। তিনি গত ১০ ডিসেম্বর প্রচার প্রচারণা শুরুর দিন থেকেই বিষখালী নদীর খেয়া পারাপার ফ্রি করে দিয়েছেন।

১০ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত দিন-রাত ২৪ ঘণ্টা নদীটি পার হতে কারো কাছে কোনো টাকা নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন ঘাট ইজারাদার কর্তৃপক্ষ। তবে বিষয়টি নির্বাচনী আচারণবিধি লঙ্ঘন বলে দাবি করছেন অন্য দলগুলোর প্রার্থীরা।

জানা গেছে, বরগুনা ২ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী শিল্পপতি মিজানুর রহমান লাঙল প্রতীকে একক প্রার্থী হিসেবে একাদশ জাতীয় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি প্রচার প্রচারণা শুরুর দিন থেকে বিষখালী নদীতে বামনা উপজেলার লঞ্চঘাট থেকে বেতাগী উপজেলার বদনীখালীর সাথে যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম যান্ত্রীক ট্রলারে ভাড়া ফ্রি করে দিয়েছেন। ঘাট ইজারাদার মো. হাফিজুর রহমানকে ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে গত ১০ ডিসেম্বর থেকে ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের দিন পর্যন্ত এই খেয়ায় আসা-যাওয়ার জন্য ২৪ ঘণ্টাই যাত্রীদের ফ্রি যাতায়াতের ব্যবস্থা করেছেন।

এ ব্যাপারে বামনা-বদনীখালী ট্রলার চালক নজরুল ইসলাম জানায়, আমাদের ইজারাদার কোনো যাত্রীর কাছ থেকে ভাড়া নিতে নিষেধ করায় কারো কাছে ভাড়া আদায় করি না।

বামনা-বদনীখালী খেয়াঘাট ইজারাদার মো. হাফিজুর রহমান বলেন, আমি ২০ দিনে যে টাকা  উত্তোলন করতাম তা যদি কেউ একবারে আমায় দিয়ে দেয় তাহলে আমি কেন কারোকাছে ভাড়া চাইবো? মিজান সাহেব আমায় ভাড়া দিয়ে দিয়েছেন তাই সবার যাতায়াত ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত ফ্রি। এখানে নির্বাচনী আচারণ বিধি আমার জানার কথা নয়। আমি দৈনিক ২০ হাজার টাকা করে তার কাছ থেকে নিয়েছি।

বরগুনা ২ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী শওকত হাচানুর রহমান রিমন বলেন, ১০০% নির্বাচনী আচারণবিধি লঙ্ঘন করেছে জাতীয় পার্টির প্রার্থী মিজানুর রহমান। কোনো প্রার্থী নির্বাচনকালীন সময়ে কোনো দান-অনুদান কিংবা ফ্রিতে যাতায়াত ব্যবস্থা কিছুতেই করতে পারেন না। আমরা রিটার্নিং কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে অবহিত করেছি।

এ ব্যাপারে বরগুনা ২ আসনের জাতীয় পার্টির প্রার্থী শিল্পপতি মিজানুর রহমানের সাথে একাধিকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বার বার ফোন কেটে দেন। 

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বামনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিউলী হরি বলেন, বামনা-বদনীখালী খেয়াঘাটে যাত্রীদের কোনো প্রার্থী ফ্রি যাতায়াতের সুযোগ করে দিয়েছেন এ বিষয়টি আমার জানা নেই। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। তবে এতে  নির্বাচনী আচারণবিধি কতটুকু লঙ্ঘন হয় এ বিষয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার সাথে আলোচনা করে আপনাদের জানানো হবে। আচারণবিধি লঙ্ঘন হলে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা