kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৪ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

নিখোঁজের তিনদিন পর বুড়িগঙ্গায় মিলল ব্যবসায়ীর ভাসমান লাশ

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৫:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নিখোঁজের তিনদিন পর বুড়িগঙ্গায় মিলল ব্যবসায়ীর ভাসমান লাশ

প্রতীকী ছবি

বুড়িগঙ্গা নদীতে গত শুক্রবার রাতে বালু বাহী বাল্কহেযের ধাক্কায় ট্রালার ডুবির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ট্রলারের সকল যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠলেও নিখোঁজ থাকে ব্যবসায়ী আব্দুর রশীদ (৪৮)। তিনদিন নিখোঁজ থাকার পর গতকাল রবিবার সকালে বুড়িগঙ্গা নদীর হাসনাবাদ কবরস্থান ঘাট বরাবর ব্যবসায়ীর লাশ ভেসে উঠে।  

এলাকাবাসী জানায়, নিহত আব্দুর রশীদ পুরান ঢাকা এলাকা তার একটি কারখানা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

তার বাড়ি দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের হাসনাবাদ এলাকায়। তার পিতার নাম মৃত. মঙ্গল মিয়া। শুক্রবার রাতে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে সদরঘাট এলাকা থেকে যাত্রীবাহী ট্রলারযোগে হাসনাবাদ এলাকায় ফিরছিলেন আব্দুর রশীদ। তাদের ট্রলারটি বুড়িগঙ্গা নদীর মিল ব্যারাক ঘাট এলাকায় পৌঁছলে অন্ধকারে বিপরীত দিক থেকে বালুবাহী একটি বাল্কহেড এসে ধাক্কা দিলে ট্রলারটি ডুবে যায়।

এ সময় ট্রলারের সকল যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠলেও নিখোঁজ থাকে আব্দুর রশীদ। খবর পেয়ে আব্দুর রশীদের স্বজনরা গত দু’দিন যাবৎ বুড়িগঙ্গা নদীর বিভিন্ন স্থানে ডুবুরি দিয়ে খোঁজাখুঁজি করতেছিলেন। এক পর্যায়ে গতকাল রবিবার হাসনাবাদ কবরস্থান ঘাট বরাবর আব্দুর রশীদের লাশ ভেসে উঠে।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার এস আই মো. আশরাফুল আলম তালুকদার জানান, স্থানীয় লোকজন রবিবার সকালে বুড়িগঙ্গা নদীর হাসনাবাদ কবরস্থান ঘাট এলাকায় আব্দুর রশীদের লাশ ভাসতে দেখে তার স্বজনদের খবর দেয়।  

এরপর নিহতের পরিবারের লোকজন আব্দুর রশীদের লাশ শনাক্ত করে থানা পুলিশকে খবর দেয়। খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করি। এ সময় নিহতের স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। আমি নিহতের সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়না তদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক‍্যাল কলেজ মর্গে প্রেরণ করি। এ ব্যাপারে নিহতের স্ত্রী পলি আক্তার বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।



সাতদিনের সেরা