kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

শ্মশানে লাশ সৎকারে বাধা, প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি   

৯ জুলাই, ২০১৮ ২৩:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্মশানে লাশ সৎকারে বাধা, প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২

ছবি: কালের কণ্ঠ

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর গেদুরা ইউনিয়নের হাটপুকুর গ্রামে শ্মশানঘাটে লাশ সৎকারে বাধা দেওয়ায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সোমবার দুপুরে এ সংঘর্ষ ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ সৎকারে বাধা দেওয়ার অপরাধে আবুহুর নামে এক ব্যক্তিকে আটক  করেছে। আবুহুর হরিপুর উপজেলার হাটপুকুর গ্রামের মৃত আব্দুল মোতালেবের ছেলে।

হাটপুকুর শ্মশান ঘাটের সাধারণ সম্পাদক বিদেশী রায় জানান, হরিপুর উপজেলার গেদুরা ইউনিয়নের রাজাদীঘি গ্রামের বিলখা বর্মন রবিববার রাতে মারা যায়। পরিবারের লোকজন সোমবার দুপুরে তার লাশ সৎকারের জন্য হাটপুকুর শ্মশান ঘাটে নিয়ে যায়। এ সময় আবুহুর নামে এক ব্যক্তি ওই শ্মশানে লাশ সৎকারে বাধা দেয়। 

এমনকি মৃতদেহ সৎকারের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করার পরও মৃতদেহটি নিয়ে টানাহেঁচড়া করে। এ সময় মৃতের লোকজন থানায় খবর দেয়। পরে মৃত্যের লোকজন পুলিশের উপস্থিতিতে লাশ সৎকারের কাজ শুরু করলে আবুহুর ও তার লোকজন আবারো সৎকারে বাধা দেয়। এতে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে মৃত ব্যক্তির দুই ছেলে রমেশ, সমেশ গুরুতর আহত হয়। 

এ সময় হরিপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ সৎকারে বাধাদানকারী আবুহুরকে গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে যায়। সাধারণ সম্পাদক বিদেশি রায় আরো জানান, এই শ্মশানে মোট ২.২৭ একর জমি ছিল। এ শ্মশানে স্বাধীনতার অনেক আগে পূর্ব পুরুষরা লাশ সৎকার করে আসছে। গত ২/৩ বছর থেকে স্থানীয় ভূমিদস্যুরা হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের ওপর হামলাসহ শ্মশানটির অধিকাংশ জমি দখল করে ফেলেছে।

হরিপুর থানার ওসি রুহুল কুদ্দুস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, লাশ সৎকারে বাধা দেওয়ার ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে ও মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা