kalerkantho

বুধবার । ৯ আষাঢ় ১৪২৮। ২৩ জুন ২০২১। ১১ জিলকদ ১৪৪২

বরিশালে প্রধানমন্ত্রীর সফর

বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জনসভা মঞ্চ প্রস্তুত

বরিশাল অফিস   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৭:০৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জনসভা মঞ্চ প্রস্তুত

বরিশাল নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের আয়োজিত জনসভার মঞ্চ প্রস্তুত হয়েছে। আজ বুধবার বিকেলে মঞ্চ নির্মাণ ও সজ্জার কাজ শেষ হয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে অনুষ্ঠিত এ জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। প্রধান অতিথির ভাষণে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আগামী নির্বাচনের দিকনিদের্শনামূলক ভাষণ দিবেন বলেও জানা গেছে। 

বরিশাল প্রশাসক কার্যালয় সূত্র জানায়, আগামীকাল সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরিশালে পৌঁছাবেন। তিনি বরিশালের নেবুখালীতে শেখ হাসিনা সেনা নিবাসের উদ্বোধনের পাশাপশি পটুয়াখালী জেলার ১৪টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও একটি প্রকল্পের ভিত্ত্বিপ্রস্থর স্থাপন করবেন। সেখান থেকে তিনি ২টা ৫৫ মিনিটে বরিশালে এসে ৭২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এরপরে বিকেল ৩টায় আওয়ামী লীগ আয়েজিত জনসভায় যোগদান করবেন প্রধানমন্ত্রী। 

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। তিনি যে মঞ্চে ভাষণ দিবেন সেটি নৌকা আকৃতিতে নির্মাণ করা হয়েছে। ১০০ ফুট দৈর্ঘ্যর নৌকার উপরে মঞ্চ নির্মাণ করা হয়েছে। মঞ্চ সজ্জায় আনা হয়েছে নান্দনিকতা। এই মঞ্চে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভা নেত্রী শেখ হাসিনা প্রধান অতিথির বক্ততা রাখবেন। এর আগে সমাবেশে আসা নেতাকর্মীদের জন্য সাংস্কৃতিক টিমের আয়োজনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হবে। এছাড়া সকাল থেকেই জনসভাস্থলে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ প্রচারসহ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রচারণা করা হবে। 

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর জনসভাস্থল বঙ্গবন্ধু উদ্যানে উন্নয়নের প্রতীক পদ্মা সেতু প্রদর্শনের জন্য প্রায় ৫০ মিটার দৈর্ঘ্য ও দুইটি গার্ডারের ওপরে স্থাপন করা হয়েছে প্রতিকী পদ্মা সেতু। বঙ্গবন্ধু উদ্যানের দক্ষিণ পশ্চিক এলাকায় বিশাল অংশ জুড়ে এ প্রতিকী সেতুটি স্থাপন করেছে বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। জনসভা স্থলের চারিদিক লাল আর সবুজ ফিতা দিয়ে সাজানো হয়েছে। এমনকি জনসভাস্থলে দুই পাশের লেকে ভাসানো হবে আওয়ামী লীগের প্রতিক নৌক। মাঠের চারপাশেও রাখা হচ্ছে রঙ্গ-বেরঙ্গের নৌকা।

এ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানাতে বরিশাল-পটুয়াখালী সড়কের লেবুখালী ফেরিঘাট পযর্ন্ত প্রায় ৩০ কিলোমিটার পথে নির্মাণ করা হয়ে কয়েক শত তোরন। টনানো হয়েছে ব্যানার ফেস্টুন বিলবোর্ড। 

তা ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানাতে নগরীর বান্দরোডস্থ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত স্টেডিয়াম থেকে বঙ্গবন্ধু উদ্যান পযর্ন্ত প্রায় ৩০০ মিটার সড়কজুড়ে অর্ধশত তোরন নির্মাণ করেছে দলীয় নেতাকর্মীরা। সড়কের পাশের ও রাস্তার উপরে আকা হয়েছে নানা রঙ্গের আলপনা। 



সাতদিনের সেরা