kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

বাংলাদেশ ক্লাইম্বিং ওয়াল এবং সবুজায়ন মালয়েশিয়ার শিক্ষার্থীদের জন্য অনুপ্রেরণা

অনলাইন ডেস্ক   

২১ নভেম্বর, ২০২১ ১৬:২১ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বাংলাদেশ ক্লাইম্বিং ওয়াল এবং সবুজায়ন মালয়েশিয়ার শিক্ষার্থীদের জন্য অনুপ্রেরণা

মালয়েশিয়ার প্রথম অলাভজনক স্কুল হিসাবে ১৯৪৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া অ্যালিস স্মিথ স্কুল, গত ৭৫ বছর ধরে শিশু ও তরুণদের জীবন ও চরিত্রকে সমৃদ্ধ করতে কাজ করে চলেছে। এটি মালয়েশিয়ার একটি প্রাচীনতম আন্তর্জাতিক ব্রিটিশ স্কুল এবং এশিয়ায় অন্যতম মর্যাদাপূর্ণ স্কুল হিসেবে সুপরিচিত। প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিদ্যালয়টি ৪০টিরও বেশি দেশের প্রায় ১৪০০ শিক্ষার্থীর সমন্বয়ে একটি বৈচিত্র্যময় এবং গতিশীল সম্প্রদায়ে পরিণত হয়েছে। বহু দশক ধরে যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড এবং আয়ারল্যান্ডের ছাত্রদের থেকে শুরু করে প্রাক্তন ছাত্রদের সন্তানদের নিয়ে এই স্কুলের সমৃদ্ধতা বাড়ছে। ৭৫ বছরেরও অধিক সময় ধরে স্কুলটি একটি সমৃদ্ধ শিক্ষাগত ঐতিহ্য এবং বিশ্বব্যাপী প্রাক্তন ছাত্রদের নিয়ে একটি সুবিস্তৃত অ্যালুমনাই অ্যাসোসিয়েশনে পরিণত হয়েছে।

এই অঞ্চলে স্বীকৃতি লাভ করা প্রথম দিকের স্কুলগুলোর মধ্যে একটি হিসাবে কাউন্সিল অব ব্রিটিশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল (COBIS) প্যাট্রনস অ্যাক্রিডিটেশন মন্তব্য করেছে, 'পেশাদার উন্নয়নের জন্য UCL IOL গোল্ড লেভেল মানের স্বীকৃতি নিয়ে অ্যালিস স্মিথ স্কুল তাদের উচ্চমানের শিক্ষামূলক অনুশীলনকে উৎসাহিত করার ক্ষেত্রে একটি উদ্ভাবনী রোল মডেল হিসেবে পরিচিত' শিক্ষার্থীদের সামগ্রিক উন্নয়নের লক্ষ্যে, পড়াশুনার পাশাপাশি অ্যালিস স্মিথ স্কুল এর ২৫ একর ক্যাম্পাসে একটি অত্যাধুনিক ক্লাইম্বিং প্রাচীর নির্মাণে বিনিয়োগ করেছে।

বাংলাদেশ-ভিত্তিক প্রযুক্তি গ্রুপ ডটলাইনস, বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতার সঙ্গে সাদৃশ্য রেখে বাংলাদেশের চেতনাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সংকল্পে এই বছর অ্যালিস স্মিথ স্কুলে এই ক্লাইম্বিং ওয়াল নির্মাণ করার জন্য স্পন্সর করেছে। 
প্রাচীরটির নামকরণ করা হয়েছে 'বাংলাদেশ ক্লাইম্বিং ওয়াল'। তার সাথে বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের একটি অর্থবহ উক্তি যুক্ত করা হয়েছে- 'শিশু হও, নিজেকে শিশুর মতো মনে করো, শিশুর মতো হাসো, তুমি পৃথিবীর সকল ভালোবাসা পাবে'। বাংলাদেশ ক্লাইম্বিং ওয়াল এই নামকরণের সুযোগটি সকল বাংলাদেশিকে তাই সার্বিকভাবে গর্বিত করেছে। 

ডটলাইনস-এর সভাপতি মাহবুবুল মতিন বলেন, মালয়েশিয়ার এমন একটি প্রশংসিত হেরিটেজ ইনস্টিটিউটের অংশ হওয়ার সুযোগ যখন এসেছিল, আমাদের জাতির পিতার সবচেয়ে উপযুক্ত একটি উক্তির সাথে এটিকে বাংলাদেশ ক্লাইম্বিং ওয়াল নামকরণের জন্য আমাদের দীর্ঘসময় চিন্তা করতে হয়নি। আমরা জানি তিনি নিঃস্বার্থভাবে শিশুদের কতটা ভালোবাসতেন। অ্যালিস স্মিথ স্কুলের এই ক্লাইম্বিং ওয়াল এর মাধ্যমে আমরা বিশ্বের শিশুদের কাছে তাঁর ভালোবাসা প্রচার করতে পেরে গর্ব অনুভব করছি। এই বিষয়টি আমাকে আবেগপ্রবণ করে তোলে যখন আমি ভাবি যে ৪০টির ও বেশি দেশের হাজারো শিশু এই উক্তিটি দ্বারা অনুপ্রাণিত হচ্ছে, বাংলাদেশ এর সাহসী ও দৃঢ় চেতনা সম্পর্কে অবগত হচ্ছে এবং প্রতিদিন প্রাচীর আরোহণের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করছে।

মালয়েশিয়ার স্থানীয় সম্প্রদায়কে সমর্থন করার জন্য ডটলাইন-এর করপোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসাবে, অ্যালিস স্মিথ স্কুল ফাউন্ডেশনের টেকসই উন্নয়ন ক্যাম্পেইনের সমর্থনে সেকেন্ডারি ক্যাম্পাসে দশটি গাছও রোপণ করে। 
বাংলাদেশের ইংরেজি বানানের ১০টি অক্ষর থেকে এই ১০টি গাছ রোপনের প্রেরণা আসে। স্কুলের প্রধান, রজার শুল্টজ মন্তব্য করেছেন 'যখন আমরা জানতে পারি যে বাংলাদেশের ৫০তম স্বাধীনতা বছর আমাদের স্কুলের এই ক্লাইম্বিং ওয়াল উদ্যোগের সাথে মিলে গেছে, আমরা সত্যিই আনন্দিত হয়েছিলাম। বাংলাদেশের দৃঢ় সংকল্প এবং অপ্রতিরোধ্য মনোভাব আমাদের স্কুলের এই ক্লাইম্বিং ওয়াল নির্মাণের উদ্দেশ্যের সাথে পুরোপুরি সম্পূরক এবং এক সুতোয় গাঁথা।'

ডটলাইনস একটি বাংলাদেশ-ভিত্তিক প্রযুক্তি গ্রুপ, যা বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১২টি দেশে কাজ করছে। ইন্টারনেট সংযোগ, সাইবার নিরাপত্তা, ই-লার্নিং, ই-হেলথকেয়ার, মাইক্রো-ইন্স্যুরেন্স, লজিস্টিকস, ডেলিভারি এবং আরো নানাবিধ পরিষেবা নিয়ে মানুষের জীবনে টেকসই পরিবর্তন আনার জন্য কাজ করে যাচ্ছে।



সাতদিনের সেরা