kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৩০ নভেম্বর ২০২১। ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

শ্রেয়া আয়োজিত ‘আনবাউন্ড ২০২১’ সাইবার স্পেসে নারীর নিরাপত্তার ওপর গুরুত্বারোপ

অনলাইন ডেস্ক   

১০ অক্টোবর, ২০২১ ০২:০১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শ্রেয়া আয়োজিত ‘আনবাউন্ড ২০২১’ সাইবার স্পেসে নারীর নিরাপত্তার ওপর গুরুত্বারোপ

ঢাকার র‍্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে শনিবার (৮ অক্টোবর) ‘আনবাউন্ড ২০২১’ শীর্ষক একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে নারীদের জন্য নিবেদিত ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম শ্রেয়া। অনুষ্ঠানে লৈঙ্গিক সমতা ও নারীদের ডিজিটাল নিরাপত্তার মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়।

প্রাইম ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও হেড অব হেড অব সেগমেন্টস শায়লা আবেদিন, সাংসদ আরমা দত্ত, শ্রেয়ার প্রতিষ্ঠাতা সানজিদা চৌধুরী স্বর্ণাসহ অন্যান্য অনেক অতিথি বক্তা, উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও শ্রেয়া গ্রুপের সদস্যরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। ইউএনএফপি’র রেসিডেন্ট কো-অর্ডিনেটর আসা টর্কেলসনও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের মূল বিষয় ছিল লৈঙ্গিক সমতা ও ডিজিটাল নিরাপত্তার বিষয়ে নারীদের মতামত ও চিন্তা তুলে ধরার জন্য একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা। আমন্ত্রিত বক্তা ও অতিথিরা তাদের বক্তব্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা ৫ (লৈঙ্গিক সমতা) অর্জনে, সমাজে নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন।

অনুষ্ঠানে এসডিজি ৫-এর ওপর গুরুত্ব দিয়ে একটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছিল, সেখানে বিশেষজ্ঞরা লৈঙ্গিক সমতা, ডিজিটাল নিরাপত্তা এবং সামাজিক মিডিয়াতে কী ধরনের আচরণ করা উচিৎ ও কী ধরনের আচরণ করা উচিৎ না, সে সম্পর্কিত বিভিন্ন দিকের ওপর আলোকপাত করেন। প্রথম প্যানেল আলোচনায় বাংলাদেশে জাতিসংঘের রেসিডেন্ট কো-অর্ডিনেটর মিয়া সেপ্পো, ইউএনএফপিএ বাংলাদেশ’র রেসিডেন্ট কো-অর্ডিনেটর আসা টর্কেলসন, ইউএন উইমেন’র বাংলাদেশ প্রতিনিধি শোকো ইশিকাওয়া ও ইউএনএফপিএ বাংলাদেশ’র ডেপুটি রিপ্রেজেন্টেটিভ এইকো নারিতা লৈঙ্গিক বৈষম্য দূরীকরণে বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে তাদের বক্তব্য তুলে ধরেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সিটিটিস’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার ইশতিয়াক আহমেদ পিপিএম সাইবার স্পেসে নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ সে বিষয়ে আলোচনা করেন। এছাড়াও অনুষ্ঠানে মোটিভেশনাল স্পিকার সোলায়মান সুখন, অভিনেত্রী জয়া আহসান ও আজমেরী হক বাঁধন এবং মিডিয়া ব্যক্তিত্ব পিয়া জান্নাতুল সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের শিষ্টাচার সম্পর্কে আলোকপাত করেছেন।

অনুষ্ঠানটি শ্রেয়ার ফেসবুক পেজে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়েছে এবং সমাজের বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার নারীরা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছেন। অনুষ্ঠানের স্পন্সর হিসেবে ছিল এসিআই, আর্টসান, নিউজিল্যান্ড ডেইরি, আদি মোহিনী লাল কাঞ্জি লাল। সেশন পার্টনার হিসেবে ছিল জাপান অটো মার্কেট। জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী তাহসান ও তার ব্যান্ডের একটি মনোমুগ্ধকর সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়।

উল্লেখ্য, শ্রেয়া প্রায় ৪৫ হাজার সক্রিয় সদস্যদের নিয়ে নারীদের জন্য ব্যাপকভাবে প্রশংসিত একটি প্ল্যাটফর্ম, যা লৈঙ্গিক বাধা দূর করতে ও নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একটি নিরাপদ স্থান তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এটি কমিউনিটি অ্যাক্টিভিজম, পারস্পরিক সহায়তা, এবং কর্মক্ষেত্রের সুযোগ তৈরি ও প্রচারের মাধ্যমে বহু মানুষের জীবনকে সহজ ও সুন্দর করে তুলেছে। 



সাতদিনের সেরা