kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

প্রাভা হেলথের সেবাদান পুনরায় শুরু

অনলাইন ডেস্ক   

২৪ আগস্ট, ২০২১ ২৩:২৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



প্রাভা হেলথের সেবাদান পুনরায় শুরু

আজ মঙ্গলবার থেকে প্রাভা হেলথ রোগীদের সেবাদান করতে পুনরায় তাদের সকল সার্ভিস আবারও শুরু করছে। মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) প্রাভা হেলথ থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের (ডিজিএইচএস) আরোপিত স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়ায় পুনরায় চালু হচ্ছে প্রাভা হেলথ সেবাদান কার্যক্রম।

২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠার সময় থেকে প্রাভা হেলথ দায়িত্বের সঙ্গে ডিজিএইচএস প্রদত্ত সকল গাইডলাইন ও পলিসি নির্দেশনা মেনে আসছে এবং আন্তর্জাতিক মানের ক্লিনিকাল কোয়ালিটি বজায় রেখেছে। গত জুলাইতে একটি অনুসন্ধান এবং পরিদর্শনকালে কিছু মৌখিক এবং গৌণ বিষয় পরিবর্তনের সুপারিশ করা হয় যার কোনোটিই প্রাভা এর ক্লিনিকাল গুণমান বা আমাদের প্রদত্ত চিকিৎসা সেবা সম্পর্কিত ছিল না।

সুপারিশগুলোর মধ্যে রয়েছে- প্রাভার ডোনিং এবং ডোফিংয়ের জন্য আলাদা জায়গা না থাকা, ভ্রমণকারীদের কভিড পরীক্ষার জন্য ১৫০ টাকা নিবন্ধন ফি নেওয়া, এমবিবিএস ডাক্তার দ্বারা পরীক্ষা না করিয়ে কভিড টেস্টে স্বাক্ষর করা এবং কম্পানির ওয়েবসাইটে ডব্লিউএইচওকে পার্টনার হিসেবে উল্লেখ করা। এই সমস্ত সুপারিশগুলো অবিলম্বে ২ আগস্ট, ২০২১ তারিখের স্থগিতাদেশ নোটিশের আগেই যথাযথভাবে সমাধান করা হয়েছিল।

এই পদক্ষেপগুলোর মধ্যে রয়েছে- ডোনিং এবং ডোফিং এরিয়া আলাদা করা, বিদেশগামী যাত্রীদের কভিড পরীক্ষার জন্য ১৫০ টাকা রেজিস্ট্রেশন ফি নেওয়া বন্ধ করা, কভিড রিপোর্টে সাইন অফ করার জন্য অতিরিক্ত একজন ভাইরোলজিস্ট (এমবিবিএস ডাক্তার) এর যোগদান এবং প্রাভার ওয়েবসাইটে 'পার্টনার'-কে 'কর্পোরেট ক্লায়েন্ট' হিসেবে সংশোধন করা।


এ বিষয়ে প্রাভা হেলথের ফাউন্ডার, চেয়ার, এবং সিইও সিলভানা কিউ সিনহা বলেন, পরিস্থিতির সমাধান হওয়াতে আমরা অনেক আনন্দিত এই কারণে যে, দেশের এই পাবলিক হেলথ ক্রাইসিসের মাঝে আমরা আবারও সকল রোগীকে পুনরায় সেবা দিতে পারব। এছাড়া গত ৩ সপ্তাহে ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যেসকল কয়েক হাজার রোগী আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন তাদের আমরা সেবা দিতে পারিনি এই আমাদের অনুশোচনা।

প্রাভার চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. সিমিন এম আক্তার বলেন, 'আমাদের সকল সেবাগ্রহীতাকে আমরা বলতে চাই, সহানুভূতিশীল ও মর্যাদাপূর্ণ বিশ্বমানের স্বাস্থ্য সেবা দেশের সকল মানুষের প্রাপ্য, এই বিশ্বাসে আমরা প্রাভা হেলথ প্রতিষ্ঠা করি। এই আকাঙ্ক্ষা ও বিশ্বাস বজায় রেখে আমরা ২০১৭ সাল থেকে লক্ষাধিক রোগীকে আমরা সেবা দিয়েছি এবং ১,৫০,০০০ এরও বেশিসংখ্যক কভিড-১৯ পরীক্ষা সম্পন্ন করেছি।'

প্রাভার ল্যাবরেটরি এবং টেস্টিংয়ের কোয়ালিটি সম্পর্কে প্রাভার সিনিয়র ল্যাবরেটরি ডিরেক্টর ডা. জাহিদ হুসেইন বলেন, 'প্রাভার ল্যাব সরঞ্জাম অত্যাধুনিক, যেমনটা বিশ্বের সেরা ল্যাবগুলোতে দেখা যায় এবং কভিড-১৯ পরীক্ষায় আমরা শুধুমাত্র বাংলাদেশ সরকার ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন উভয় অনুমোদিত রিএজেন্ট ব্যবহার করি।'

প্রাভা হেলথ গুরুত্ব দিয়ে বলতে চায় যে, বাংলাদেশ ও সারা বিশ্ব যে ক্ষয় ও দুর্দশা নিয়ে এই মহামারির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে, সেখানে তারা সততা ও স্বচ্ছতা বজায় রেখে সকল রোগীদের সেবা দিতে থাকবে।

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন অভিযোগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজিএইচএস) গত ২ আগস্ট প্রাভা হেলথের সব কার্যক্রম সাময়িকভাবে স্থগিত করে।

প্রাভা হেলথ সম্পর্কে : প্রাভা একটি ‘ব্রিক এবং ক্লিক’ স্বাস্থ্যসেবা প্ল্যাটফর্ম। প্ল্যাটফর্মটি গতানুগতিক স্বাস্থ্যসেবার সঙ্গে টেকনোলজিকে একত্রিত করেছে। প্রাভা হেলথ চিকিৎসক -রোগীর সম্পর্ককে অর্থপূর্ণ করেছে (১৫ মিনিটের অ্যাপয়েন্টমেন্ট) এবং মানসম্মত ডায়াগনস্টিকস (ল্যাব এবং ইমেজিং) এবং ওষুধ সেবা দিয়ে থাকে। এছাড়া প্রাভার ডিজিটাল পণ্যের ব্যবস্থাও রয়েছে। এতে রয়েছে বাংলাদেশের প্রথম রোগী পরিষেবা অ্যাপ (২০১৮ সালে চালু), টেলিমেডিসিন, ই-ফার্মেসি এবং ভার্চ্যুয়াল প্রাইমারি কেয়ার।



সাতদিনের সেরা