kalerkantho

মঙ্গলবার । ৮ আষাঢ় ১৪২৮। ২২ জুন ২০২১। ১০ জিলকদ ১৪৪২

বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব অ্যামিউজমন্ট পাকর্স এন্ড এট্রাকশনস (বাপা) -এর দাবি

‘বিনোদন পার্কগুলো খুলে না দিলে টিকে থাকা অসম্ভব হয়ে পড়বে’

অনলাইন ডেস্ক   

২ জুন, ২০২১ ২১:৫৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘বিনোদন পার্কগুলো খুলে না দিলে টিকে থাকা অসম্ভব হয়ে পড়বে’

আজ বুধবার রাজধানীর গুলশানের সিক্স সিজনস হোটেলে দুপুর ১২টায় বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব অ্যামিউজমন্ট পাকর্স এন্ড এট্রাকশনস (বাপা) এর পক্ষ থেকে একটি সংবাদ সম্মেলন এর আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে অ্যামিউজমন্ট পাকগুলোর করোনাকালীন অবস্থা তুলে ধরেন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব অ্যামিউজমন্ট পাকর্স এন্ড এট্রাকশনস (বাপা) এর সভাপতি শাহরিয়ার কামাল।

এতে বলা হয়, করোনা সংক্রমণের প্রথম পর্যায়ে বর্তমান সরকারের যথাযথ উদ্যোগের ফলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে এসেছিল এবং সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোর সাথে আমরা বিনোদন পার্কগুলো বন্ধ রেখে ছিলাম, যদিও এতে বিনোদন কেন্দ্র গুলো আর্থিকভাবে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল, তারপরেও মানবিকতার দিকটি বিবেচনায় রেখে কর্মচারীদের বেতন ভাতা সময় মতো পরিশোধ করা হয়েছিল। সে সময় সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবসায়িক মৌসুম ঈদের পূর্বে পার্ক গুলো খোলার অনুমতি না দেওয়ায় প্রতিষ্ঠান গুলো ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও আমাদের আশা ছিল ভবিষ্যতে আমরা তা কাটিয়ে উঠতে পারব কিন্তু পুনরায় ২য় পর্যায়ে আবারও করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার ফলে বিনোদন পার্ক ও পর্যটন কেন্দ্র গুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ফলে এই শিল্পটি ব্যবসায়িক ও আর্থিক দিক থেকে পুনরায় ক্ষতিগ্রস্ততার সম্মুখীন হচ্ছে। অন্যান্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ন্যায় এখন যদি এই বিনোদন পার্কগুলো খুলে না দেওয়া হয় তাহলে এই প্রতিষ্ঠান গুলোর টিকে থাকা বা ঘুরে দাঁড়ানো প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়বে।

সংগঠনটি জানায়, দেশে অবস্থিত বিনোদন পার্কের টিকে থাকা ও স্ব-অবস্থায় ফিরে আসার স্বার্থে নিম্নলিখিত প্রস্তাবনাসমূহ বাস্তবায়ন করা অত্যন্ত জরুরি-

১. অতি সত্ত্বর অন্যান্য সেক্টর /প্রতিষ্ঠান সমূহ খুলে দেওয়ার যে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে সেই মোতাবেক বিনোদন পার্ক সমূহ খুলে দেওয়া।

২. বিনোদন পার্কসমূহকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থে সরকার কর্তৃক ঘোষিত বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় বিনোদন পার্কসমূহকে অন্তর্ভুক্ত করা।

৩. আগামী ৫ বছরের জন্য বিনোদন পার্ক এর উপর ভ্যাট, সম্পূরক শুল্কসহ অন্যান্য কর মওকুফ করা যাতে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে পর্যটক ও দর্শনার্থীদের সেবা নিশ্চিত করা যায়।

৪. আগামী ৫ বছর নতুন বিনোদন পার্ক নির্মাণ ও বর্তমান স্থাপনার সংযোজনার জন্য আমদানিকৃত বিভিন্ন রাইডসহ অন্যান্য যন্ত্রপাতিতে মূসক ও শুল্ক কর মুক্ত আমদানীর সুযোগ দান।

৫. চলতি মূলধন যোগান নিরবচ্ছিন্ন রাখার স্বার্থে ১% সুদে ঋণ প্রদান করা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।



সাতদিনের সেরা