kalerkantho

শনিবার । ২১ ফাল্গুন ১৪২৭। ৬ মার্চ ২০২১। ২১ রজব ১৪৪২

আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতল পথশিশুদের ‘মজার ইশকুল’

অনলাইন ডেস্ক   

২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:৩৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিতল পথশিশুদের ‘মজার ইশকুল’

আন্তর্জাতিক কুরিয়ার ও পার্সেল সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ডিএইচএল এর ‘ডিএইচএল গট হার্ট ২০১৯-২০’ এর প্রতিযোগীতায় পথশিশুদের জন্য পরিচালিত সংগঠন মজার ইশকুল ২০১৯ সালের এশিয়া প্যাসেফিক থেকে বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে।

২০১৯ সালে মজার ইশকুল এর স্বেচ্ছাসেবী ও শিক্ষা উন্নয়ন অভিভাবক নাজমুন নাহার (পে-রোল সুপারভাইজার, ডিএইচএল, বাংলাদেশ) যিনি ডিএইচএল বাংলাদেশ এর একজন কর্মকর্তা ‘ডিএইচএল গট হার্ট’ এর প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করেন। প্রায় ৩০০ এর অধিক অংশগ্রহনকারীর মধ্যে থেকে প্রাথমিকভাবে আরো ১৪৪ জনের সাথে কান্ট্রি উইনার হিসেবে নির্বাচিত হয় মজার ইশকুল।

‘ডিএইচএল গট হার্ট’ এর প্রতিযোগীতায় ডিএইচএল এর যেকোন কর্মকর্তা তার অফিশিয়াল কাজের বাহিরে কোন সামাজিক কার্যক্রমের সাথে যুক্ত তারা উক্ত সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠানে তাদের কার্যক্রম একটি ভিডিওর মাধ্যমে তুলে ধরে। উক্ত ভিডিও-এর উপর ভিত্তি করে প্রথমে অঞ্চলভিত্তিক কান্ট্রি উইনার এবং এরপর কান্ট্রি উইনারদের মধ্যে থেকে অঞ্চলভিত্তিক (রিজিওনাল) উইনার নির্বাচন করা হয়।

এরপর দ্বিতীয় ধাপে ডিএইচএল থেকে তথ্য যাচাই। মজার ইশকুল এর পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অর্জনে সুস্পষ্ট পরিকল্পনার এবং পরিকল্পনার উপর ভিত্তি করে ৪টি ধাপে পথশিশুদের জীবিনযাত্রার মান উন্নয়নে কার্যক্রমের উপর ভিত্তি করে এশিয়া প্যাসেফিক রিজিওন (বাংলাদেশ, ভারত, জাপান, ফিলিপাইন, মায়ানমার, ভিয়েতনাম, হংকং, ফিজি, কোরিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড ও এশিয়ার মধ্যস্ত অনান্য দেশ) থেকে প্রথমবারের মত বাংলাদেশ থেকে অঞ্চলভিত্তিক (রিজিওনাল) উইনার বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত হয় মজার ইশকুল।

মজার ইশকুল (একটি অদম্য বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন উদ্যোগ) যা ১০ জানুয়ারি ২০১৩ সাল থেকে পথশিশু মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে মজার ইশকুল এর ৪টি স্থায়ী ইশকুল রয়েছে যেখানে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ন্যাশনাল কারিকুলাম অনুসারে বিনামূল্যে শিক্ষা প্রদান করা হয় এবং ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষা প্রদানের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও খোলা আকাশের নিচে পরিচালিত ৪টি মজার ইশকুল এ মাসে গড়ে প্রায় দশ হাজারের অধিক শিশুর কাছে পৌছাতে পারছে মজার ইশকুল এর স্বেচ্ছাসেবী টিম। বাবা-মাহীন অসহায় শিশুদের জন্য নির্মানাধীন রয়েছে একটি স্থায়ী চিল্ড্রেন্স ভিলেজ।

মজার ইশকুল-এ বর্তমান নিবন্ধিত স্বেচ্ছাসেবী সংখ্যা প্রায় সাড়ে চার হাজার একই সাথে ৭৫ জন কর্মকর্তা কর্মরত রয়েছে পথশিশুদের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের জন্য। নিজস্ব স্বনির্ভরশীলতা বৃদ্ধির জন্য মজার ইশকুল এর রয়েছে সোস্যাল এন্টারপ্রাইজ, যার লভ্যাংশের ১০০% ব্যয় করা হয় মজার ইশকুল এর কার্যক্রমে।

‘ডিএইচএল গট হার্ট’ এর প্রতিযোগীতায় রিজিওনাল উইনার হিসেবে নির্বাচিত হওয়ায় ২৫,০০০ ইউরো পুরস্কার হিসেবে পেয়েছে মজার ইশকুল, যা সম্পূর্ন বাংলাদেশের সুবিধাবঞ্চিত পথশিশুদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের জন্য ব্যবহৃত হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা