kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

আইইউবিএটি-তে

মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সফিকউল্লাহ'র মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:২২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ সফিকউল্লাহ'র মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজির সাবেক কোষাধ্যক্ষ ও বোর্ড অব গভর্নরস এর সদস্য মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল (অব.) মোহাম্মদ সফিকউল্লাহ, বীরপ্রতীক এর ১১তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার বিকেল ৪ টায় এ উপলক্ষে এক দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুর রব। উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের, উপ উপাচার্য রেজিস্ট্রার ডিপার্টমেন্টের চেয়ার, ডাইরেক্টর, কো-অর্ডিনেটর, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

উল্লেখ্য, কর্নেল (অব.) মো. সফিকউল্লাহ ৩১ শে মার্চ ২০০৮ সালে মৃত্যুবরণ করেন। আইইউবিএটি তাকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করে।

মরহুম কর্নেল সফিকউল্লাহ ১৯৪১ সালের ২৬ শে অক্টোবর কুমিল্লা জেলার চান্দিনা উপজেলার অন্তর্গত কৈলাইন গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম আলেম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হতে এমএ পাশ করার পর ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন এবং ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের প্রথম থেকেই তিনি রণাঙ্গনে ৮ নং সেক্টর কোম্পানিসহ ৫নং গেরিলা ইউনিটের কমাণ্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মুক্তিযুদ্ধে সাফল্য ও বীরত্বপূর্ণ অবদানের জন্য যুদ্ধকালীন সময়ে তাকে ক্যাপ্টেন হিসেবে ফিল্ড কমিশন দেওয়া হয় এবং পরবর্তীতে তুমুল সাহসের সঙ্গে যুদ্ধ করার জন্য যুদ্ধাহত অফিসার হিসেবে, বীর প্রতীক খেতাব প্রদান করা হয়।

স্বাধীনতা পরবর্তীকালে সেনাসদর, বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমি, ২৪ পদাতিক ডিভিশন, আর্মি স্কুল অব এডুকেশন অ্যাণ্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন-এর মতো বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৬ সালে সেনাবাহিনী থেকে অবসর গ্রহণের পরআইইউবিএটি’তে ট্রেজারার পদে প্রায় ১৩ বৎসর দায়িত্ব পালন করেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের উপর বেশ কিছু বই লেখেন। তার মধ্যে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধে বাংলার নারী, একাত্তরের রণাঙ্গন: গেরিলা যুদ্ধ ও হেমায়েত বাহিনী, মুক্তিযুদ্ধে চট্টগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধে নৌকমান্ড ও মুক্তিযুদ্ধে ৮নং সেক্টর।

মন্তব্য