kalerkantho

বিআরটিসি নেবে ৬০৫ চালক

৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিআরটিসি নেবে ৬০৫ চালক

অস্থায়ী ভিত্তিতে বাস ও ট্রাকচালক (অপারেটর গ্রেড-সি) পদে মোট ৬০৫ জন নিয়োগ দেবে রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থা বিআরটিসি। ২১ মার্চ বাংলাদেশ প্রতিদিনের ১০ নম্বর পৃষ্ঠায় এ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। আবেদন করতে হবে ১৫ এপ্রিলের মধ্যে। আরো জানাচ্ছেন ফরহাদ হোসেন

 

যোগ্যতা : অষ্টম শ্রেণি পাস বা সমমানের প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। প্রার্থীর বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্সের পাশাপাশি গাড়ি চালনায় কমপক্ষে ৩ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। যানবাহনের প্রাথমিক মেরামত, রুটিন রক্ষণাবেক্ষণ ও খুচরা যন্ত্রাংশ সম্পর্কেও জানাশোনা থাকতে হবে। সঙ্গে পরিযানবিধি এবং মহাসড়ক সম্পর্কে পর্যাপ্ত ধারণা থাকতে হবে। বয়স হতে হবে সর্বোচ্চ ৩২ বছর (২০ মার্চ ২০১৯ তারিখে)।

আবেদনপ্রক্রিয়া : সাদা কাগজে হাতে বা কম্পিউটারে কম্পোজ করে আবেদন করতে হবে। অবেদনপত্রে প্রার্থীর নাম, পিতা ও মাতার নাম, স্থায়ী ও বর্তমান ঠিকানা (মোবাইল নম্বরসহ), জন্ম তারিখ, শিক্ষাগত যোগ্যতা, জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদের নম্বর ও অভিজ্ঞতা উল্লেখ করতে হবে। আবেদনপত্রের সঙ্গে তিন কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি, জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদ, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, অভিজ্ঞতার সনদ, ড্রাইভিং লাইসেন্সের (দুই কপি), চারিত্রিক সনদ ও নাগরিক সনদপত্রের ফটোকপি সংযুক্ত করতে হবে। সনদের ফটোকপি প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তার মাধ্যমে সত্যায়িত করতে হবে। ‘চেয়ারম্যান, বিআরটিসি, পরিবহন ভবন, ২১ রাজউক এভিনিউ, ঢাকা-১০০০’ বরাবরে যেকোনো বাণিজ্যিক ব্যাংক থেকে ১৫০ টাকার ব্যাংক ড্রাফট অথবা পে-অর্ডার (অফেরতযোগ্য) দিতে হবে। ১৫ এপ্রিলের মধ্যে আবেদন জমা দিতে হবে এই ঠিকানায়—

চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন (বিআরটিসি), পরিবহন ভবন, ২১ রাজউক এভিনিউ, ঢাকা-১০০০। খামের ওপর পদের নাম, নিজ জেলার নাম এবং মুক্তিযোদ্ধা বা অন্য যেকোনো কোটা থাকলে তা উল্লেখ করতে হবে।

পরীক্ষা পদ্ধতি ও প্রশিক্ষণ : বিআরটিসির প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বাস ও ট্রাকচালক নিয়োগে কালার ভিশন টেস্ট, লিখিত, ড্রাইভিং টেস্ট এবং মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হয়। মোট ১০০ নম্বর থাকে। প্রথমে নেওয়া হবে কালার ভিশন টেস্ট। এ ধাপে পাস করলে ওই দিনই ৪০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় বসতে হবে। লিখিত পরীক্ষায় পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণির বাংলা, অঙ্ক, ইংরেজি বইয়ের আলোকে প্রশ্ন থাকতে পারে। গাড়ি চালানোর প্রাথমিক নিয়ম-কানুনের ওপর প্রশ্ন করা হয়। লিখিত পরীক্ষায় টিকলে ড্রাইভিং টেস্ট বা ব্যাবহারিক পরীক্ষায় (৫০ নম্বর) অংশ নিতে হবে। সব শেষে নেওয়া হবে ভাইভা (১০ নম্বর)। নির্বাচিত প্রার্থীদের বিআরটিসি কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে (গাজীপুর) ভারী যান চালনার ওপর প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। 

পরীক্ষার প্রস্তুতি : বিআরটিসি মিরপুর বাস ডিপোর বাসচালক মো. ফয়সাল হোসেন জানান, মৌখিক পরীক্ষায় মোটরগাড়ি চালনা, রক্ষণাবেক্ষণ, সিগন্যাল, মোটরযান বিধিমালা ইত্যাদি বিষয়ের প্রাথমিক দিকগুলো সম্পর্কে কতটুকু ধারণা আছে, তা জানতে চাওয়া হয়। লিখিত পরীক্ষায় মোটরযান ও ট্রাফিক সম্পর্কিত প্রশ্ন করা হয়। সবচেয়ে বেশি প্রশ্ন আসে সিগন্যাল, ট্রাফিক আইন, ট্রাফিক সাইন, গাড়ি চালনার নিয়ম-কানুন বিষয়ে। গাড়ির পার্টস, সিগন্যাল, মোটরযানবিধি, র‌্যাম্পে ওঠানামা ইত্যাদির ওপর ভালো ধারণা রাখতে হবে। সঙ্গে মোটরযান রক্ষণাবেক্ষণ, প্রাথমিক মেরামত, খুচরা যন্ত্রাংশের ব্যবহার জানা থাকতে হবে। ড্রাইভিং টেস্টে টিকতে হলে গাড়ি চালনায় দক্ষ হতে হবে। বিআরটিসির ‘ড্রাইভিং ট্রেনিং গাইড’ বইটি পড়লে দরকারি অনেক তথ্য জানা যাবে। 

 

বেতন-ভাতা : নিয়োগপ্রাপ্ত চালকদের ‘জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫’ অনুযায়ী ১৬তম গ্রেডে ৯৩০০-২২৪৯০ টাকা বেতন ও অন্য সুবিধাদি দেওয়া হবে।

মন্তব্য