kalerkantho

সোমবার । ২০ মে ২০১৯। ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৪ রমজান ১৪৪০

জেনে নাও

আদ্যিকালের রুলার

৩ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আদ্যিকালের রুলার

এক-দুই দশক আগেও কাঠের তৈরি হলুদ রঙের রুলারই বেশি চোখে পড়ত। এখন প্লাস্টিক আর ধাতবটাই দেখা যায় বেশি। আর আজ থেকে সাড়ে চার হাজার বছর আগে? আরো নিখুঁত করে বলতে গেলে আজ থেকে ৪৬৭০ বছর আগে প্রথম যে রুলারটা মানুষ ব্যবহার করেছে, সেটা কী দিয়ে বানানো ছিল? ইরাকের নিপ্পুর শহরে খোঁড়াখুঁড়ি করতে গিয়ে জার্মান প্রত্নতাত্ত্বিক একার্ড আংগার পেয়েছিলেন হাতির দাঁতের রুলার। ওই সময় ইঞ্চি সেন্টিমিটার এসব আবিষ্কার হয়নি। মানুষ তার কাজের সুবিধার জন্য নিজের মতো করে পরিমাপের একক বানিয়ে নিত। ওই রকমই একটা একক বসানো ছিল সুমেরীয় সভ্যতার ওই রুলারে। এখনকার হিসাবে ওই এককটা ছিল এক ইঞ্চির ১৬ ভাগের এক ভাগ। প্রায় সাড়ে তিন হাজার বছর আগ পর্যন্ত ব্যবহৃত হয়ে আসছিল ওটা। পরে আরো অনেক সভ্যতাতেই রুলারের আবির্ভাব ঘটে। এর মধ্যে মহেনজোদারো সভ্যতার রুলারে ছিল এককের দুটি ভাগ। এখনকার রুলারে যেমন এক ইঞ্চিতে দশ ভাগ করে কাটা দাগ দেওয়া থাকে, তেমনি মহেনজোদারোর ওই স্কেলের ১ দশমিক ৩২ ইঞ্চিতে ছিল ১০টি ভাগ। এমনকি কোনো ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি ছাড়াই ওই আমলের কারিগররা সেই দাগগুলোর দূরত্ব একেবারে নিখুঁত রাখতে পারতেন।

খ্রিস্টপূর্বাব্দ ২০৬ থেকে খ্রিস্টপূর্বাব্দ ৮ সাল পর্যন্ত ব্রোঞ্জের তৈরি একটা রুলারের প্রচলন ছিল চীনজুড়ে। এখন তোমরা এক ফুট তথা ১২ ইঞ্চি আকারের স্কেল ব্যবহার করছ। চীনের রুলারটা ছিল ১ চি আকারের। ১ চি=৯ দশমিক ১ ইঞ্চি।

 

নূসরাত জাহান নিশা

মন্তব্য