kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

বিইউবিটি জার্নাল

৯ মে, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিইউবিটির রেজিস্ট্রার ও জার্নালের প্রকাশক ড. মো. হারুন-অর-রশিদ বলেন, “টাকা-পয়সা গ্রহণ ও পদের বিচার না করে শুধু নিবন্ধের মানের ভিত্তিতে ‘বিইউবিটি জার্নাল’-এ লেখা প্রকাশিত হয়। প্রতিবছর ইংরেজি ভাষায় একটি করে এ পর্যন্ত মোট আটটি জার্নাল প্রকাশিত হয়েছে।” ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক, ফ্যাকাল্টি অব আর্টস অ্যান্ড হিউম্যানিটিজের ডিন ও জার্নালের এডিটর ড. সৈয়দ আনোয়ারুল হক বলেন, ‘কোনো গবেষক লেখা জমাদানের পর আমরা সেটির সফট কপি আধুনিক ডিভাইসে পরীক্ষা করে সত্যতা যাচাই করি। এরপর আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের নিয়ে গড়া জার্নাল কমিটি লেখার মান যাছাই করেন। খ্যাতনামা শিক্ষাবিদদের সমন্বয়ে গড়া রিভিউ কমিটির মাধ্যমেও সেটির বিশ্লেষণ করা হয়। এডিটরিয়াল বোর্ড সেটি নির্বাচনের পর আমার কাছে পাঠালে ভাষা ঠিক করে প্রকাশের জন্য পাঠাই।’ তিনি জানালেন, যেকোনো গবেষক বিইউবিটি জার্নালে লেখা প্রকাশ করতে পারেন। প্রতি সংখ্যায় ১২ থেকে ১৫টি নিবন্ধ প্রকাশিত হয়। বিইউবিটি জার্নালের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সফিক আহমেদ সিদ্দিক, উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবু সালেহ্ এবং ট্রাস্টি বোর্ডের সাবেক সদস্য ও কমার্স কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক কাজী মো. নুরুল ইসলাম ফারুকী।

মন্তব্য