kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

সারা বছর ব্যস্ত ক্লাবগুলো

৯ মে, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এই বিশ্ববিদ্যালয়ে মোট আটটি ক্লাব আছে। সেগুলো হলো—বিজনেস ক্লাব, ডিবেটিং ক্লাব, কালচারাল ক্লাব, ফটোগ্রাফি ক্লাব, সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার ক্লাব, গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস ক্লাব, আইটি ক্লাব ও রোভার স্কাউট। ক্লাবগুলো নিয়ে বলতে গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এবং ফটোগ্রাফি ও ডিবেটিং ক্লাবের চিফ কো-অর্ডিনেটর (প্রধান সমন্বয়কারী) মো. আবদুল্লাহ আল আজাদ বলেন, ‘ছাত্র-ছাত্রীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি নানা কার্যক্রমে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ব্যক্তিত্ব গড়ে দেওয়া, সমাজের সর্বশ্রেণির মানুষের সঙ্গে মেলামেশার সুযোগ তৈরি করা, বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে তাদের যুক্তিনির্ভর করা, তাদের মধ্যে নেতৃত্বদানের যোগ্যতার বিকাশের জন্য ক্লাবগুলো সারা বছর অনেক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে।’ সেসব কার্যক্রমের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, “বিজনেস ক্লাব ‘বিজনেস আইডিয়া কম্পিটিশন’ বা ব্যবসায় ধারণা প্রতিযোগিতা করে; ‘মার্কেটিং পলিসি’ বা বিপণননীতি নিয়ে কর্মশালা করে। গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর ক্লাবটি ‘হোয়াই উই ফেইল?’ নামে একটি ব্যাবসায়িক সেমিনারের আয়োজন করেছে।” তিনি জানালেন, প্রতিটি ক্লাবের সমস্যাগুলোর সমাধান, প্রতিযোগিতার আয়োজন ও তাদের দিকনির্দেশনা প্রদানের জন্য শিক্ষকরা ক্লাবগুলোর সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। নিজেদের ক্লাবের গল্প করতে গিয়ে আইটি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট আহসানুল আলম রিফাত বলেন, “আমরা সারা বছর ধরে নানা কাজ করি, অনেক আয়োজন আছে। সেগুলোর মধ্যে ‘ইন্টারন্যাশনাল এসিএম আইসিপিসি ঢাকা সুইট ২০১৪’ অন্যতম। তাতে সারা দেশের ৩৫০ জন প্রতিযোগী অংশ নিয়েছেন। তা ছাড়া  কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সঙ্গে যৌথ আয়োজনে গত বছরের ৮ থেকে ১৩ অক্টোবর পাঁচ দিন ধরে ‘ন্যাশনাল প্রগ্রামিং ক্যাম্প’ করেছি। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অধ্যাপক ও বিশিষ্ট কম্পিউটার ব্যক্তিত্ব ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন এবং  শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও জনপ্রিয় লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল ছাত্র-ছাত্রীদের উৎসাহ দিতে এসেছিলেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়েদের নিয়ে আলাদা প্রগ্রামিং প্রতিযোগিতা করেছি, অন্ত ও আন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রগ্রামিং প্রতিযোগিতাও করেছি।”

গেমস অ্যান্ড স্পোর্টস ক্লাবের প্রেসিডেন্ট জাকিরুল ইসলাম শাওন জানালেন, তাঁদের ক্রিকেট দলটি বেশ শক্তিশালী। টানা তিনবার ‘ক্লেমন ইনডোর ক্রিকেট টুর্নামেন্ট’-এ অংশ নিয়েছে, গত বছরের ১৫ এপ্রিল ‘লাস্ট ম্যান স্ট্যান্ড’ ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, ‘ডিআইইউ-একমি ইন্টার ইউনিভার্সিটি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ২০১৭’তে সেমিফাইনালে খেলেছে। তিনি বলেন, ‘ছাত্র-ছাত্রীদের খেলাধুলায় অংশগ্রহণ বাড়াতে এই ক্লাবের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগগুলো নিয়ে আমরা আন্ত বিভাগ ফুটবল, ক্রিকেট প্রতিযোগিতার আয়োজন করি। মিরপুরে বিইউবিটির ২৫ বিঘার বিরাট একটি খেলার মাঠ রয়েছে।’ ইংলিশ ক্লাবের প্রেসিডেন্ট মো. শামসুল ইসলাম জানালেন, ক্যাম্পাসের ছাত্র-ছাত্রীদের ইংরেজিতে দক্ষতা বাড়াতে প্রতি সোমবার তাঁরা ইংলিশ স্পিকিং ও প্র্যাকটিসিং ক্লাস করান। ক্লাবের মাধ্যমে ইংরেজি বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীরা প্রতিবছর পহেলা বৈশাখে মঞ্চনাটক করেন।

ডিবেট ক্লাব ঘুরে জানা গেল, ক্লাবের সদস্যরা নিয়মিত জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশ নেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেন। গত বছরের ১১ থেকে ১৬ নভেম্বর তাঁরা আন্ত বিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন।

সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার ক্লাব এই সমাজের মানুষের জন্য কাজ করে। গত বছরের ২৬ আগস্ট ক্লাবের সদস্যরা কুড়িগ্রাম জেলায় গিয়ে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত অসহায়  মানুষদের হাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ক্লাবগুলোর বন্ধুদের মাধ্যমে সংগ্রহ করা খাবার, ওষুধপত্র, পোশাকসহ নানা প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তাঁরা ‘স্বেচ্ছায় রক্তদান’, শীতে অসহায়দের মধ্যে পোশাক বিতরণ কর্মসূচি পালন করেন। সামাজিক সচেতনতার জন্য মাদক, যৌতুক, নারী নিপীড়নসহ নানা বিষয়ে সেমিনার ও কর্মশালার আয়োজন করেন।

এসব ক্লাবের প্রতিটি অনুষ্ঠানে, বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আয়োজনে শৃঙ্খলার দায়িত্বে থাকে রোভার স্কাউট। তাঁরা এই বিশ্ববিদ্যালয়েরই ছাত্র-ছাত্রী। গত বছরের ২২ থেকে ২৭ জুলাই তাঁরা  হজ ক্যাম্পে স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ২৪ নভেম্বর তাঁরা বাংলাদেশ স্কাউটের ঢাকা জেলা শাখা আয়োজিত রক্তদান কর্মসূচিতে রক্ত দিয়েছেন।

মন্তব্য