kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

জবি ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি প্রসেনজিৎ, সম্পাদক অনিমেষ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:২৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জবি ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি প্রসেনজিৎ, সম্পাদক অনিমেষ

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের ৫ম সম্মেলনের মাধ্যমে প্রসেনজিৎকে সভাপতি ও অনিমেষকে সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা  হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাস্কর্য চত্ত্বরে এ সম্মেলনের কমিটি দেওয়া হয়।

কমিটির অন্য সদস্যদের হলেন সহ-সভাপতি স্মরণ দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক কৌশিক আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক তপু সরোয়ার, স্কুল সম্পাদক হারুন উর রশিদ, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আব্দর রব, অর্থ সম্পাদক শরিফুলইসলাম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইমাদ আলভী ফারাবি, পাঠাগার সম্পাদক অর্পণ সিংহ। এ ছাড়াও সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মৌমিতা চক্রবর্তী এবং রায়হান মিয়া।

এদিকে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি মাসুদ রানা। সংগঠনের বিশ্বদ্যিালয় শাখার সভাপতি কিশোর কুমার সরকারের সভাপতিত্বে সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় কার্য পরিচালনা কমিটির সদস্য কমরেড ফখরুদ্দিন কবির আতিক এবং সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জবি শাখার সহ-সভাপতি প্রসেনজিৎ সরকার।

সম্মেলনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে উদ্বোধনী বক্তব্যে মাসুদ রানা বলেন, আজ আমরা যেসব জ্ঞান বা শিক্ষা অর্জন করছি সেসব জ্ঞান বা শিক্ষা কতিপয় ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর তৈরি করা নয়। এর সাথে মানবজাতির সুদীর্ঘ এক সংগ্রামের ইতিহাস জড়িত। আজকের এই সময়ে এসে পৃথিবী জুড়ে সমস্ত জনগণকে তাদেও পুঁজিবাদী-সাম্রাজ্যবাদী শক্তি গোটা মানব সভ্যতার সংগ্রামের ফসলকে মুনাফার হাতিয়ারে পরিণত করতে চাচ্ছে। আমাদের দেশেও শিক্ষার বিরুদ্ধে এমন ভয়ংকর আগ্রাসন চলমান।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জনগণের শিক্ষার অধিকার রক্ষার লক্ষ্যে এই আগ্রাসনের বিরুদ্ধে তার লাগাতার এবং সুতীব্র লড়াই চালিয়ে যাবার প্রত্যয় ব্যক্ত করছে।

সমাবেশে সংগঠনের বিশ্বদ্যিালয় শাখার সভাপতি কিশোর কুমার সরকার বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস আন্দোলনের, ঐতিহ্য আন্দোলনের। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্ম আন্দোলনের মধ্য দিয়েই। যতবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের সাথে প্রতারণা করবার চেষ্টা করেছে যতবার তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেও অধিকার বঞ্চিত করার পাঁয়তারা করেছে ততবার শিক্ষার্থীরা আন্দোলনের মধ্য দিয়েই তার দাঁত ভাঙা জবাব দিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের যেকোনো অধিকারের প্রশ্নে প্রশাসন কোনো রকম তালবাহানা করলে ভবিষ্যতেও এরকম দাঁত ভাঙা জবাব দেয়া হবে।

এ সময় তিনি অবিলম্বে জকসু নির্বাচন দেওয়াসহ শিক্ষার্থীদের সকল ন্যায়সঙ্গত দাবি পূরণে অতিসত্ত্বর উদ্যোগ গ্রহণের অহ্বান জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা