kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১ ডিসেম্বর ২০২২ । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

বেশি ঘোরে সিলেটের মানুষ

জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান ৩.০২%

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১১:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেশি ঘোরে সিলেটের মানুষ

ভ্রমণপিয়াসী মানুষ দেশের সব এলাকায় কমবেশি আছে। তবে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) জরিপ বলছে, দেশের বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ঘোরে সিলেটের মানুষ, আর সবচেয়ে কম ঘোরে ময়মনসিংহের মানুষ। দেশে ভ্রমণের জন্য পর্যটকদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে ডিসেম্বর মাস। তাদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় পছন্দের মাস হলো যথাক্রমে জুন ও জানুয়ারি।

বিজ্ঞাপন

দেশের দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে পর্যটকরা কক্সবাজার, চট্টগ্রামের পতেঙ্গা ও পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকতে যেতেই বেশি পছন্দ করে। বিবিএসের করা ‘ট্যুরিজম স্যাটেলাইট অ্যাকাউন্ট’ শীর্ষক এক জরিপে উঠে এসেছে এসব তথ্য। বিবিএস দৈবচয়নের ভিত্তিতে দেশের মোট পাঁচ হাজার খানার ওপর জরিপটি করেছে। এর মধ্যে শহরাঞ্চলের দুই হাজার ৩৯০টি খানা ও গ্রামাঞ্চলের দুই হাজার ৬১০টি খানা। সরকারি সংস্থাটির কর্মকর্তারা বলছেন, দেশে পর্যটকের সংখ্যা ও ভ্রমণ ব্যয়ের পরিমাণ জানা এবং মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) পর্যটন খাতের অবদান সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এই জরিপ করা হয়। দেশে করোনার সংক্রমণ মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার ঠিক আগে গত বছরের মার্চ মাসে জরিপের প্রক্রিয়া শুরু হয়। যারা বাইরে কোথাও ঘুরতে গিয়ে এক রাতের বেশি সময় কাটিয়েছে, তাদেরই জরিপে পর্যটক হিসেবে ধরেছে বিবিএস। এই জরিপ প্রকল্পের পরিচালক তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান কত, তা জানা ছিল না। জরিপের মাধ্যমে সেটি বের করা হয়েছে। তা ছাড়া জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় (এসডিজি) পর্যটন খাতের তথ্য দেওয়ার জন্যও জরিপটি করার দরকার ছিল। ’ বিবিএস বলছে, জিডিপিতে এখন পর্যটন খাতের অবদান ৩.০২ শতাংশ, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৭৭ হাজার কোটি টাকা।



সাতদিনের সেরা