kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

লাগামহীনভাবে বাড়ছে রডের দাম

♦ খুচরা বাজারে এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি টনে এক হাজার টাকা বেড়েছে ♦ তিন মাসের ব্যবধানে বেড়েছে ১০ হাজার

সজীব আহমেদ   

২১ জানুয়ারি, ২০২২ ১০:১৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



লাগামহীনভাবে বাড়ছে রডের দাম

বেশ কয়েক মাস ধরেই লাগামহীনভাবে বাড়তে থাকা রডের বাজার কিছুদিন স্থিতিশীল থাকার পর আবারও বাড়ছে। এ সপ্তাহে টনপ্রতি এক হাজার টাকা বেড়েছে। তবে রডের দাম বাড়লেও সিমেন্টের দাম আগের মতোই রয়েছে।

গত সেপ্টেম্বরে বাজারে ভালো মানের (৬০ গ্রেডের ওপরে) প্রতি টন রডের দাম ছিল ৬৯ থেকে ৭০ হাজার টাকা।

বিজ্ঞাপন

সেটি অক্টোবর থেকে বাড়তে বাড়তে এখন প্রতি টন হয়েছে ৮০ থেকে ৮১ হাজার টাকা। তিন মাসের ব্যবধানে ঘরবাড়ি ও স্থাপনা নির্মাণের অন্যতম প্রধান এই উপকরণের দাম প্রতি টনে বেড়েছে ১০ থেকে ১১ হাজার টাকা। এতে বিপাকে পড়েছেন ব্যক্তিগত বাড়ি নির্মাণকারী ও আবাসন ব্যবসায়ীরা।

সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, বিশ্ববাজারে কাঁচামালের দাম এবং জাহাজভাড়া ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়ায় রডের দাম বেড়েছে। করোনার প্রভাব কাটিয়ে বিশ্বে নির্মাণকাজ বেড়ে যাওয়ায় চাহিদা অনুসারে কাঁচামাল পাওয়া যাচ্ছে না। অন্যদিকে নির্মাণকাজের ভরা মৌসুম হওয়াতেও এখন রডের চাহিদা বেশি। তবে কাঁচামালের দাম না কমা পর্যন্ত রড-সিমেন্টের দাম কমবে না বলেও তাঁরা জানান।

এদিকে গত কয়েক মাসে নির্মাণ ও অবকাঠামো খাতের মূল কাঁচামালের দাম ২০ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকার গৃহীত অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পগুলো যথাসময়ে সম্পন্ন করা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছে দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই। এমন পরিস্থিতিতে প্রকল্পে নির্মাণ ব্যয় সামাল দিতে রড আমদানির অনুমতি চেয়েছে ব্যবসায়ীদের এ শীর্ষ সংগঠনটি।

সরকারি প্রকল্পে স্থানীয় ঠিকাদারদের অগ্রাধিকার দেওয়ার পাশাপাশি সরকারি নীতিমালার কারণে প্রকল্প ব্যয় বেড়ে গেলে ঠিকাদারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার বিধান করার অনুরোধ জানিয়েছে এফবিসিসিআই। সম্প্রতি এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি জসিম উদ্দিন প্রধানমন্ত্রীকে দেওয়া এক চিঠিতে দেশের নির্মাণসংশ্লিষ্ট পণ্যের অযৌক্তিক মূল্যবৃদ্ধি রোধ ও  নির্মাণ খাতে চলমান অস্থিরতা নিরসনে হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

গত সোমবার সরেজমিনে রাজধানীর বিভিন্ন রড-সিমেন্টের খুচরা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, দুই মাসের ব্যবধানে নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে রডের দাম প্রতি টনে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেড়ে যায়। হঠাৎ রডের এত দাম বেড়ে যাওয়ায় বেশির ভাগ নির্মাণকাজ বন্ধ হয়ে যায়। যার ফলে বিক্রিও একদম কমে যায়। বাজারে রডের চাহিদা কমে যাওয়ায় ডিসেম্বরের শেষ দিকে দাম কিছু কমে যায়। কিছুদিন স্থিতিশীল থাকার পর আবার প্রতি টনে এক হাজার টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।

রড-সিমেন্টের বর্তমান বাজার নিয়ে রাজধানীর কুড়িল এলাকায় কাজী স্টিল অ্যান্ড কোংয়ের ম্যানেজার জসিম উদ্দিন বলেন, ‘এখন বিএসআরএম (৭২.৫০ গ্রেডের রড) প্রতি টন ৮১ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। অন্যান্য ব্র্যান্ডের কম্পানির রডগুলো ৭৮ থেকে ৮০ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এদিকে ছোট কম্পানির রডগুলো প্রতি টন ৭২ থেকে ৭৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ’



সাতদিনের সেরা