kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

এবি ব্যাংক ও এনআরবিসির দুটি বন্ড ছাড়ার অনুমোদন

বিশেষ নিরীক্ষা হবে পিপলস লিজিংয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ নভেম্বর, ২০২১ ২৩:৩৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশেষ নিরীক্ষা হবে পিপলস লিজিংয়ে

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত পিপলস লিজিং ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড (পিএলএফএসএল) চালুর সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বিএসইসি কম্পানিতে কিছু কর্মকর্তা ও কর্মচারী নিয়োগ দিতে বলেছে। কম্পানিটিকে স্ট্যাটুটরি অডিট করতে বলা হয়েছে। কম্পানিটিতে যেসব আর্থিক অপরাধ হয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে একটি বিশেষ নিরীক্ষা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার বিএসইসি’র কমিশন সভায় এ বিষয় আলোচনা শেষ জানানো হয়, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ফিন্যান্সিয়াল রিষ্ট্রাকচারিংয়ের বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে কম্পানির কার্যক্রম চালু করতে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে কমিশন।

কমিশন সভা শেষে জানানো হয়, কম্পানিটির ২০১৩ সাল থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত আর্থিক বিবরণী ও অন্যান্য কার্যক্রমের ওপর বিশেষ নিরীক্ষা পরিচালনা করা হবে।

সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট ডিভিশনের নির্দেশনা মোতাবেক ২২ নভেম্বর পিপলস লিজিংয়ের নবগঠিত পরিচালনা পর্ষদের সঙ্গে নিয়ন্ত্রক সংস্থার আলোচনার পর আরো একটি সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে।
চলতি বছরের ১৩ জুলাই বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ এক আদেশে পপিলস লিজিংয়ের পুনরুজ্জীবিত করতে ১০ সদস্যের পরিচালনা পর্ষদ গঠন করে দেয়।

আলোচিত ব্যাংকার পি কে হালদারের ঋণ কেলেঙ্কারিতে জর্জরিত কম্পানিটি ডুবে গেছে ২০১৯ সালের জুলাইয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পিপলস লিজিংকে অবসায়নের পক্ষে সম্মতি দেয় সরকার।

এবি ব্যাংক ছাড়বে ৬০০ কোটি টাকার বন্ড: দুটি ব্যাংকের মোট ৯০০ কোটি টাকার দুটি বন্ড ছাড়ার অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এবি ব্যাংককে বন্ড ছেড়ে ৬০০ কোটি টাকা তোলার অনুমোদন দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

এই ৬০০ কোটি টাকার মধ্যে ৫৪০ কোটি টাকার বন্ড বিক্রি হবে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে, আর বাকি ৬০ কোটি টাকা পাবলিক প্লেসমেন্টের মাধ্যমে বা পুঁজিবাজার থেকে তোলা হবে। এই বন্ডের প্রতি ইউনিটের দাম হবে এক হাজার টাকা, সুদের হার হবে ৬ থেকে ১০ শতাংশ।

সরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান, মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ইনস্যুরেন্স কম্পানি, তালিকাভুক্ত ব্যাংক, সমবায় ব্যাংক, আঞ্চলিক গ্রামীণ ব্যাংক, সংগঠন, ট্রাস্ট ও স্বায়ত্তশাসিত করপোরেশন এ বন্ড কিনতে পারবে। বন্ড ছেড়ে তোলা অর্থ দিয়ে কোম্পানির মূলধন ভিত্তি শক্ত করা হবে বলে এবি ব্যাংক জানিয়েছে।

৩০০ কোটি টাকার বন্ড ছাড়বে এনআরবিসি : এনআরবিসি ব্যাংককে বন্ড ছেড়ে ৩০০ কোটি টাকা তোলার অনুমোদন দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এই বন্ডের প্রতি ইউনিটের দাম হবে এক কোটি টাকা। বন্ড ছেড়ে তোলা অর্থ দিয়ে কম্পানির মূলধন ভিত্তি শক্ত করা হবে বলে এনআরবিসি ব্যাংক জানিয়েছে।



সাতদিনের সেরা