kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

মশা নিধনে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বেবিচক

বাণিজ্য ডেস্ক   

১৬ মার্চ, ২০২১ ২১:৪২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মশা নিধনে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বেবিচক

মশা নিধনে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। অন্যান্য বছরের চেয়ে এ বছর তা আরো ব্যাপকভাবে করা হচ্ছে। আজ কয়েকটি পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক মশা নিধন বিষয়ে যে তথ্য উত্থাপিত হয়েছে সে বিষয়ে বেবিচক এ বক্তব্য দেয়।

বেবিচক জানায়, মশা নিধনে যে সব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে- লার্ভা ধ্বংসকরণ, নিয়মিত ধুম্র নিঃসরণ, পতিত জমি ও জলাশয়ের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা ইত্যাদি নিশ্চিত করা। বিশেষভাবে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের নির্মাণ কাজের জন্য এয়ার ও ল্যান্ড সাইডের ডোবা বা জলাশয়সমূহ ভরাট করা হয়েছে। বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের আবাসিক এলাকাতেও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা এবং খাল ও জলাশয়গুলোতে মশা নিধনে কচুরিপানা অপসারণের বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

বিমানবন্দর এলাকায় মশক নিধন কর্মকাণ্ড তদারকি করার জন্য গত ২১ জানুয়ারি বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মহোদয়ের সভাপতিত্বে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। অতপর এ বিষয়ে মন্ত্রণালয় কর্তৃক একটি টাস্ক ফোর্স গঠন করা হয়। উক্ত টাস্ক ফোর্সে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের দুজন যুগ্মসচিব এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, সিটি কপোরেশন ও বেবিচকের প্রতিনিধি অন্তর্ভূক্ত রয়েছেন।

এই টাস্ক ফোর্সের সদস্যগণ বেবিচক কর্তৃক গৃহিত মশা নিধন কার্যক্রমগুলো সরজমিনে পরিদর্শন করেছেন এবং টাস্ক ফোর্সের পর্যবেক্ষণগুলোকে আমলে নিয়ে বেবিচক কর্তৃক বিভিন্ন ধরনের ব্যবস্থাগ্রহণ করা হচ্ছে। এ ছাড়া বিমান বন্দরের আশেপাশে প্রচুর মশার উপদ্রব এখনো আছে। কারণ বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে মশা অধিক আলোকিত এলাকায় চলে আসে।

বিশেষজ্ঞের মতে মশা প্রায় পাঁচ কিলোমিটার পর্যন্ত আসতে পারে। বিমানবন্দর পরিস্কার ও আলোকিত হওয়ায় রাত হওয়ার সাথে সাথে পার্শ্ববর্তী এলাকা হতে মশা চলে আসে। এ অবস্থার প্রেক্ষিতে বিমানবন্দর ও এর আশেপাশের এলাকাগুলোতে মশা নিধন কার্যক্রম বাস্তবায়নের জন্য সংঘবদ্ধ কার্যক্রম অপরিহার্য। বিমানবন্দর এলাকার আশেপাশে বসবাসরত জনসাধারণ এবং জনস্বার্থে নিয়োজিত সিটি কর্পোরেশনসহ অন্যান্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাসমূহের আন্তরিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে এই সমস্যার আশু সমাধান সম্ভব হবে।



সাতদিনের সেরা