kalerkantho

সোমবার । ১১ মাঘ ১৪২৭। ২৫ জানুয়ারি ২০২১। ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

রবির আইপিও আবেদন শুরু, চলবে ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত

অনলাইন ডেস্ক   

১৭ নভেম্বর, ২০২০ ১১:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রবির আইপিও আবেদন শুরু, চলবে ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত

প্রতীকী ছবি।

দেশের শেয়ারবাজারের ইতিহাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বড় প্রাথমিক গণপ্রস্তাব বা আইপিও শেয়ারের আবেদন শুরু হয়েছে। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুঠোফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা আইপিওতে ৫২ কোটির বেশি শেয়ার বিক্রি করবে। প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) আবেদন গ্রহণ মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১০টা থে‌কে শুরু হয়েছে। এ আবেদন গ্রহণ চলবে ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত।

এর আগে গত ২৩ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৭৪১তম সভায় কম্পানিটির আইপিও অনুমোদন দেওয়া হয়।

তথ্য ম‌তে, ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৫২ কোটি ৩৭ লাখ ৯৩ হাজার ৩৩৪টি শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৫২৩ কোটি ৭৯ লাখ ৩৩ হাজার ৩৪০ টাকা সংগ্রহ করবে রবি। এর মধ্যে ৩৮৭ কোটি ৭৪ লাখ ২৪ হাজার টাকার শেয়ার আইপিওতে ইস্যু করা হবে বিনিয়োগকারীদের জন্য। বাকি ১৩৬ কোটি ৫ লাখ ৯ হাজার ৩৪০ টাকার শেয়ার ইস্যু করা হবে কম্পানির কর্মকর্তাদের জন্য।

খসড়া প্রসপেক্টাস অনুযায়ী, রবির ২০১৯ সালে টার্নওভার হয়েছে ৭ হাজার ৪৮১ কোটি ১৭ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। এ টার্নওভার থেকে সব ব্যয় শেষে নিট মুনাফা হয়েছে ১৬ কোটি ৯০ লাখ ৮৯ হাজার টাকা, যা শেয়ারপ্রতি হিসেবে মাত্র ৪ পয়সা।

এর আগে ২০১৮ সালে রবির ইপিএস হয়েছিল ৪৬ পয়সা। তবে ২০১৭ সালে শেয়ারপ্রতি ২ পয়সা ও ২০১৬ সালে ১ টাকা ৮৮ পয়সা লোকসান হয়।

রবি আজিয়াটার আইপিওতে প্রতিটি শেয়ার ১০ টাকা অভিহিত মূল্য বা ফেসভ্যালুতে বিক্রি করবে। কেম্পানিটির আইপিওর প্রতিটি বাজারগুচ্ছ বা মার্কেট লটে রয়েছে ৫০০টি শেয়ার। সেই হিসাবে প্রতিটি বাজারগুচ্ছের জন্য একজন বিনিয়োগকারীকে পাঁচ হাজার টাকা জমা দিতে হবে। বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী, নিজ নিজ ব্রোকারেজ হাউসে টাকা জমা দিয়ে বিনিয়োগকারীরা আইপিওতে আবেদন করতে পারবেন।

বাজার–সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, যেহেতু কম্পানিটি আইপিওতে বিপুল পরিমাণ শেয়ার বিক্রি করছে, তাই আবেদনকারীদের এটির আইপিও শেয়ার পাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা